বিবৃতি

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, শনিবার, ৯:২১

বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্টের তীব্র প্রতিবাদ

জামায়াতের ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ণ করার হীন উদ্দেশ্যেই ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’ পত্রিকার প্রতিবেদক ডাহা মিথ্যাচার করেছেন

২৫ ফেব্রুয়ারী বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায় প্রকাশিত ‘এবার ঘর পুড়ছে জামায়াতের’ শীর্ষক প্রতিবেদনের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান আজ ২৫ ফেব্রুয়ারী প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “জামায়াতে ইসলামী একটি সুশৃঙ্খল আদর্শবাদী সংগঠন। এ সংগঠনের নেতা ও কর্মীদের আর্থিক অনুদানে সংগঠন পরিচালিত হয়। যথাযথভাবে আয়-ব্যয়ের হিসাব সংরক্ষণ ও অডিট করা হয়। তাই এখানে তহবিল তসরুফ করার কারো কোন সুযোগ নেই।

‘সেক্রেটারী জেনারেল ডাঃ শফিকুর রহমান তহবিল তসরুফ করেছেন’ মর্মে প্রতিবেদক যা লিখেছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। ডাঃ শফিকুর রহমান ও জামায়াতের ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ণ করার হীন উদ্দেশ্যেই প্রতিবেদক ডাহা মিথ্যাচার করেছেন।

নায়েবে আমীর ‘জনাব আতাউর রহমান ডাঃ শফিকুর রহমান কর্তৃক কথিত তহবিল তসরুফের প্রতিবাদ করায় তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে’ মর্মে যা লেখা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। জনাব আতাউর রহমানকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়নি। প্রতিবেদক ‘তৃণমূল পর্যায়ের নেতা ও কর্মীগণ বিক্ষুব্ধ’ বলে যা কিছু লিখেছেন তা নির্জলা মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছু নয়। প্রতিবেদক জনাব আতাউর রহমানের সাথে কথা না বলেই তার উদ্বৃতি দিয়েছেন। এ থেকেই প্রমাণিত হয় যে, বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ও জনাব আতাউর রহমান এর ভাবমর্যাদা নষ্ট করার হীন উদ্দেশ্যেই পরিকল্পিতভাবে এই প্রতিবেদনটি লেখা হয়েছে। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আমি আশা করি বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার কর্তৃপক্ষ এ প্রতিবাদটি যথাস্থানে ছেপে সৃষ্ট বিভ্রান্তি নিরসন করে সাংবাদিকতার নীতিমালা অনুসরণ করবেন এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের বানোয়াট ও মিথ্যা অপপ্রচার থেকে বিরত থাকবেন।”