বিবৃতি

৯ মার্চ ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ৬:২৮

দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীক বাদ দিয়ে গেজেট প্রকাশের প্রতিবাদ

জামায়াতে ইসলামীর নামে সংরক্ষিত ‘দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীক বাতিলের নির্বাচন কমিশনের গৃহীত সিদ্ধান্ত অগণতান্ত্রিক

নির্বাচন কমিশন কর্তৃক নির্বাচনী প্রতীকের তালিকা থেকে ‘দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীক বাদ দিয়ে গেজেট প্রকাশের প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান আজ ৯ মার্চ প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “নির্বাচনী দলীয় প্রতীক হিসেবে জামায়াতে ইসলামীর নামে সংরক্ষিত ‘দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীক বাতিলের নির্বাচন কমিশনের গৃহীত সিদ্ধান্ত অগণতান্ত্রিক।’

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ‘দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীকসহ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক নিবন্ধিত একটি রাজনৈতিক দল। ‘দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীক নিয়ে জামায়াতে ইসলামী অতীতে প্রায় প্রতিটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহন করে আসছে। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ- ১৯৭২ অনুযায়ী নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য নির্বাচন কমিশন প্রতীক বরাদ্দ ও সংরক্ষণ করে থাকে।

জামায়াতের নিবন্ধন মামলাটি মহামান্য সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন আছে। মাননীয় আদালত জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করেননি। সুতরাং গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ’১৯৭২ অনুযায়ী প্রতীক সহ জামায়াতের নিবন্ধন বহাল আছে। এমতাবস্থায় নির্বাচন কমিশন কর্তৃক প্রতীক বাতিলের এই সিদ্ধান্তটি রহস্যজনক। আমরা নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং নির্বাচনী প্রতীক হিসেবে জামায়াতের জন্য বরাদ্দকৃত ‘দাঁড়িপাল্লা’ প্রতীকটি সংরক্ষিত রাখার আহবান জানাচ্ছি।”