সর্বশেষ সংবাদ

২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার, ২:৪৬

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বিএনপি-জামায়াতকে জড়িয়ে যে ভিত্তিহীন মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইনমন্ত্রী জনাব আনিসুল হক গত ২২ জুলাই নেত্রকোনা জেলা আইনজীবী সমিতি কর্তৃক আয়োজিত এক সমাবেশে গণপিটুনি দিয়ে মানুষ হত্যার জন্য বিএনপি-জামায়াতকে দায়ী করে যে ভিত্তিহীন মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান আজ ২৩ জুলাই প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “আইনমন্ত্রী জনাব আনিসুল হক গণপিটুনি দিয়ে মানুষ হত্যার জন্য বিএনপি-জামায়াতকে দায়ী করে যে ভিত্তিহীন মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন আমি তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তার এ বক্তব্য সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তার বক্তব্যের মধ্যে সত্যের লেশমাত্রও নেই।

তার এ বক্তব্যের জবাবে আমি সুস্পষ্ট ভাষায় জানাতে চাই যে, জামায়াতে ইসলামী কখনো ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। কাজেই গণপিটুনি দিয়ে মানুষ হত্যার পেছনে জামায়াতে ইসলামীর নিখুুঁত ষড়য্ন্ত্র থাকার প্রশ্নই আসে না। বরং জামায়াতে ইসলামীর বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন মিথ্যা বক্তব্য দিয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জনগণের জানমালের নিরাপত্তা বিধানে সরকারের ব্যর্থতা আড়াল করার গভীর ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন। এভাবে নির্জলা মিথ্যা বক্তব্য দিয়ে সরকারের ব্যর্থতা থেকে জনগণের দৃষ্টি আড়াল করা যাবে না। শাক দিয়ে মাছ ঢাকার ষড়যন্ত্র কখনো সফল হবে না। উদোর পিন্ডি বুধোর ঘারে চাপানোর চক্রান্ত বাদ দিয়ে ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে গণপিটুনি দিয়ে মানুষ হত্যা বন্ধ করার জন্য কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমি সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

দেশে কোন ঘটনা ঘটলেই তার জন্য জামায়াতে ইসলামীকে দায়ী করে ভিত্তিহীন মিথ্যা বক্তব্য দেয়া বর্তমান সরকার ও তার মন্ত্রীদের বহু পুরানো অভ্যাস। আইন মন্ত্রীর এ বক্তব্য তাদের সে পুরানো অভ্যাসেরই পুনরাবৃত্তি। জামায়াতে ইসলামীর বিরুদ্ধে দেয়া তাদের কোন একটি বক্তব্যই আজ পর্যন্ত সত্য প্রমাণিত হয়নি। কাজেই জামায়াতে ইসলামীর বিরুদ্ধে দেয়া তাদের কোন বক্তব্যই দেশবাসী বিশ্বাস করে না।

নিজেদের ভাবমর্যাদার কথা চিন্তা করে জামায়াতে ইসলামীর বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন মিথ্যা বক্তব্য দেয়া থেকে বিরত থাকার জন্য আমি আইনমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”