Monday, 18th November, 2019
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
দৈনিক ইত্তেফাক ও দি ইনডিপেনডেন্ট পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্ট দুটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত
২৫ জুলাই ২০১৬, সোমবার,
আজ ২৫ জুলাই দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় “যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাধাগ্রস্ত করার জন্যই গুলশানে হামলা চালানো হয়েছে” এবং ইংরেজি দৈনিক দি ইনডিপেনডেন্ট পত্রিকায় “গুলশান হামলার মূল পরিকল্পনাকারী চিহ্নিত” শিরোনামে প্রকাশিত মিথ্যা, বানোয়াট এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত রিপোর্ট দু’টি প্রত্যাখ্যান করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগের সেক্রেটারী অধ্যাপক মোঃ তাসনীম আলম আজ ২৫ জুলাই নিম্নোক্ত বিবৃতি প্রদান করেছেনঃ-
 
বিবৃতিতে তিনি বলেন, “দৈনিক ইত্তেফাক ও দি ইনডিপেনডেন্ট পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্ট দুটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ণ করার হীন উদ্দেশ্যেই এ রিপোর্ট দুটি প্রকাশ করা হয়েছে। জামায়াতে ইসলামীর মত একটি বৈধ রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে গোয়েন্দা সংস্থা এ ধরনের বিদ্বেষপূর্ণ তথ্য দিতে পারে তা আমরা বিশ্বাস করতে চাই না। যদি তারা সত্যিই এ ধরনের কোন তথ্য দিয়ে থাকে তা অত্যন্ত মর্মান্তিক ও দুঃখজনক। 
 
আমরা বারবার বলে আসছি যে, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী একটি নিয়মতান্ত্রিক গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। কোন সন্ত্রাসী হামলার সাথে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কোন সম্পর্ক নেই। জামায়াত জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসকে সব সময়ই ঘৃণা করে থাকে। গুলশান হামলার পর সেই মধ্য রাতেই জামায়াত এই ভয়াবহ হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছিল এবং এ হামলার মূল পরিকল্পনাকারীদের যাতে চিহ্নিত করা যায় সে জন্য হামলাকারী দুর্বৃত্তদের  জীবিত গ্রেফতার করার জন্য জামায়াত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল। 
 
অত্যন্ত বর্বরোচিত ও মর্মান্তিক এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্তদের নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে শনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের পরিবর্তে সরকার যে নোংরা রাজনৈতিক ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে তা দেশের সাড়ে ১৬ কোটি মানুষকে হতাশ করেছে। সরকারের রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভূমিকা বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের ভাবমর্যাদা দারুণভাবে ক্ষুণ্ণ করেছে। সরকারের এ ভূমিকায় প্রকারান্তরে প্রকৃত সন্ত্রাসী ও ঘটনার নেপথ্য নায়করা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তাই সম্প্রতি সংঘটিত সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের স্বার্থেই দোষারোপের রাজনৈতিক খেলা বন্ধ করার জন্য আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আবারও আহ্বান জানাচ্ছি। সন্ত্রাস নিয়ে রাজনীতি করার পরিণতি জাতির জন্য বিপর্যয় ডেকে আনবে।  
 
আমি জামায়াতের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সিন্ডিকেটেড রিপোর্ট প্রকাশ করা থেকে বিরত থেকে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের জন্য দৈনিক ইত্তেফাক ও দি ইনডিপেনডেন্ট পত্রিকা কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”