Sunday, 31st May, 2020
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় প্রদত্ত মৃত্যুদন্ডের রায় শুনে মীর কাসেম আলীর বিচলিত হওয়ার প্রশ্নই আসে না
২ সেপ্টেম্বর ২০১৬, শুক্রবার,
আমাদের সময় ডটকমসহ দু’একটি অনলাইন পত্রিকায় “কনডেম সেলে অঝোর ধারায় কাঁদছেন মীর কাসেম” শিরোনামে আজ ২ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত বিভ্রান্তিকর রিপোর্টের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও সাবেক এমপি জনাব হামিদুর রহমান আযাদ আজ ২ সেপ্টেম্বর প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “আমাদের সময় ডটকমসহ দু’একটি অনলাইন পত্রিকার রিপোর্টে ‘পরশু সকালে রায় শুনে জনাব মীর কাসেম আলীর কান্না শুরু হয়েছে এবং বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কয়েক দফা অঝোরে কেঁদেছেন’ মর্মে যে সব কথা লেখা  হয়েছে তা নির্জলা মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছুই নয়। 
 
আমাদের সময় ডটকমসহ দু’একটি অনলাইন পত্রিকার ভিত্তিহীন মিথ্যা রিপোর্টের জবাবে আমি স্পষ্ট ভাষায় জানাতে চাই যে, তাদের রিপোর্টে জনাব মীর কাসেম আলীর চরিত্র হননের সর্বশেষ নিকৃষ্টতম অপপ্রয়াস চালানো হয়েছে। জনাব মীর কাসেম আলী একজন অত্যন্ত দৃঢ়চেতা ও সাহসী নেতা। তার পরিবারের সদস্যগণ তার সাথে সাক্ষাত করতে গেলে তিনি স্পষ্ট ভাষায় বলেছেন, ‘তিনি সম্পূর্ণ নির্দোষ। শুধুমাত্র ইসলামী আন্দোলন করার কারণেই তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। এর পূর্বে রিভিউ পিটিশন দায়ের করার সময় তিনি তার আইনজীবীদের বলেছিলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই। অন্যায়ভাবে আমাকে হত্যা করা হলে সেটা হবে আমার শাহাদাতের মৃত্যু। আমি মৃত্যুর ভয়ে বিচলিত নই।’
 
মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় প্রদত্ত মৃত্যুদ-ের রায় শুনে তার বিচলিত হওয়ার প্রশ্নই আসে না। ইসলামী আন্দোলনের নেতা-কর্মীরা শহীদ হওয়ার জন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকেন। কাজেই রায় শুনে জনাব মীর কাসেম আলীর কান্নাকাটি করার প্রশ্ন অবান্তর। 
 
এ ধরনের চরিত্র হননকারী ভিত্তিহীন মিথ্যা রিপোর্ট প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকার জন্য আমি আমাদের সময় ডটকম পত্রিকাসহ সংশ্লিষ্ট পত্রিকা কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”