Thursday, 21st November, 2019
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
যুগান্তরের রিপোর্টে উল্লেখিত আকলিমা রহমান মনির সাথে ছাত্রী সংস্থার কোন সম্পর্ক নেই
১৯ আগস্ট ২০১৬, শুক্রবার,
দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার শেষ পৃষ্ঠায় “নারী জঙ্গিদের নেপথ্যে জামায়াতের ইন্ধন” শিরোনামে আজ ১৯ আগস্ট প্রকাশিত রিপোর্টে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেফতারকৃত শিক্ষার্থী আকলিমা রহমান মনির বক্তব্যের বরাত দিয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা যুগান্তরের রিপোর্টারের কাছে “নিষিদ্ধ সংগঠন জামাআতুল  মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) নারী জঙ্গিদের নেপথ্যে জামায়াতের ইন্ধন রয়েছে। জামায়াতের পৃষ্ঠপোষকতায় গড়ে উঠা ইসলামী ছাত্রী সংস্থা জঙ্গিকে সংগঠিত করছে।” মর্মে মন্তব্য করেছেন বলে যুগান্তরের রিপোর্টে যে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতের ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও সাবেক এমপি জনাব হামিদুর রহমান আযাদ আজ ১৯ আগস্ট প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হওয়া কোন ব্যক্তির জবানবন্দী সংবাদপত্রের কোন রিপোর্টারের কাছে প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনী কাজ। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোন গোয়েন্দা কর্মকর্তা এ ধরনের বেআইনী কাজ করতে পারেন না। কাজেই দৈনিক যুগান্তরের এ রিপোর্ট বিশ্বাস যোগ্য নয়। 
 
দৈনিক যুগান্তরের রিপোর্টে উল্লেখিত আকলিমা রহমান মনির সাথে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রী সংস্থার কোন সম্পর্ক নেই। তার মানারাত বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ইসলামী ছাত্রী সংস্থার সহ-সভানেত্রীর দায়িত্ব পালনের প্রশ্নই আসে না। জামায়াতে ইসলামীর মহিলাদের সাথে জেএমবি বা অন্য কোন জঙ্গি সংগঠনের সম্পর্ক থাকা বা পৃষ্ঠপোষকতা করা বা ইন্ধন দেয়ার প্রশ্ন অবান্তর। মহিলা জামায়াত ও ইসলামী ছাত্রী সংস্থার সাথে জঙ্গিদের জড়িয়ে যুগান্তরের রিপোর্টে যে সব কথা লেখা হয়েছে তা সর্বৈব মিথ্যা। 
 
জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রী সংস্থাকে জড়িয়ে ভিত্তিহীন মিথ্যা রিপোর্ট প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকার জন্য আমি দৈনিক যুগান্তর পত্রিকা কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আশা করছি যে, তারা অত্র প্রতিবাদটি যথাস্থানে ছেপে সৃষ্ট বিভ্রান্তি নিরসন করবেন।”