Tuesday, 19th November, 2019
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
ব্যারিষ্টার আরমানের সন্ধান ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে দেশব্যাপি শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ পালিত
১৬ আগস্ট ২০১৬, মঙ্গলবার,
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য ড. মু. রেজাউল করিম বলেছেন, সরকার ভিন্নমতকে দমন করতেই হত্যা, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, গুম, অপহরণ ও গুপ্ত হত্যার পথ বেছে নিয়েছে। সে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসাবেই বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মীর কাসেম আলীর ছেলে ও ডিফেন্স পক্ষের আইনজীবী ব্যারিষ্টার মীর আহমদ বিন কাসেম আরমানকে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর পরিচয়ে অপহরণ করে গুম করা হয়েছে। কিন্তু জনগণের উপর জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে অতীতে কোন স্বৈরাচারি ও ফ্যাসীবাদী শক্তির শেষ রক্ষা হয়নি, আর কখনো হবেও না। তিনি সরকারকে নেতিবাচক ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি পরিহার করে অবিলম্বে ব্যারিষ্টার আরমানের সন্ধান ও নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন। অন্যথায় সরকারকে গণরোষের মুখোমুখি হতে হবে।
 
তিনি আজ রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় ব্যারিষ্টার আরমানের সন্ধান ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী আয়োজিত এক বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে একথা বলেন। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ছাত্রশিবির ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি জামিল মাহমুদ, জামায়াতে ইসলামী শেরেবাংলা থানা আমীর অধ্যাপক আ জ ম কামাল উদ্দিন, তেজগাঁও থানা আমীর মোহাম্মদ সালাহ উদ্দীন, ক্যান্টনমেন্ট থানা আমীর নাজিম উদ্দিন মোল্লা ও  বনানী থানা আমীর  সাইফুল ইসলাম  প্রমূখ।
 
ড. রেজাউল করিম বলেন, গণমানুষের জানমালের নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকারের হলেও সরকার রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মাধ্যমে জনজীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছে।  কোন প্রকার পরওয়ানা ছাড়া বা সাদা পোষাকে গ্রেফতারের ব্যাপার দেশের উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের ডিফেন্স আইনজীবী ব্যারিষ্টার আরমানকে কোন প্রকার পরওয়ানা ছাড়াই সাদা পোষাকধারীরা তুলে নিয়ে গেলেও আজ পযর্ন্ত তিনি নিখোঁজ। ফলে মীর কাসেম আলীর রিভিউ শুনানী নিয়ে নিয়ে অনিশ্চয়তার সৃষ্টি করেছে। যা সংবিধান, আইনের শাসন ও মানবাধিকারের মারাত্মক লঙ্ঘন। তিনি সরকারকে প্রতিহিংসা ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি পরিকরে সুস্থ্য ধারার রাজনীতিতে ফিরে আসার আহবান জানান।
 
মোহাম্মদপুর-ধানমন্ডি জোনঃ
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরীর কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন বলেছেন, সরকার রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মাধ্যমে গোটা দেশকেই মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছে। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় চলছে খুন, গুম ও গুপ্ত হত্যা। রাতের আধারে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের ডিফেন্স আইনজীবী ব্যারিষ্টার মীর আহমদ বিন কাসেম আরমানকে তুলে নিয়ে গুম করা হয়েছে। কিন্তু হত্যা, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, গুম ও অপহরণ চালিয়ে কোন আদর্শকে কখনোই নির্মূল করা সম্ভব হয়নি। তিনি ব্যারিষ্টার আরমানের সন্ধান ও অবিলম্বে মুক্তির জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান।
 
তিনি আজ রাজধানীর মোহাম্মদ বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় ব্যারিষ্টার আরমানের সন্ধান ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মোহাম্মদপুর-ধানমন্ডি জোন আয়োজিত এক বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে একথা বলেন।  সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগরী মজলিশে শুরা সদস্য এ্যাডভোকেট জসিম উদ্দীন তালুকদার ও ডা. শফিউর রহমান, শিবিরের ঢাকা কলেজ সভাপতি মিজানুর রহমান, জামায়াত নেতা মোহাম্মদ আলী, আব্দুল ওয়াজেদ, এ্যাডভোকেট আজহার মুন্সী, আবু নাঈম, সৈয়দ কামরুল ইসলাম, ইমরান হাসন তারিফ, আব্দুল্লাহ আল সাকিব, ছাত্র নেতা আবু নাহিদ, আব্দুল ওয়াহিদ, কামাল উদ্দীন, মোখলেছুর রহমান, মামুন ও সাকিব প্রমূখ।

এছাড়াও চট্টগ্রাম, রাজশাহী, বরিশাল, খুলনা, সিলেট, রংপুর, কুমিল্লা, গাজীপুর, নোয়াখালী, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ, পাবনা, ফেনী, সিরাজগঞ্জ, সাতক্ষীরা, ফরিদপু্‌র, নারায়াণগঞ্জ ও দেশের আরো বিভিন্ন স্থানে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে জামায়াত।