Thursday, 21st January, 2021
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
জামায়াত শিবিরের নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গণ-গ্রেফতারের তীব্র প্রতিবাদ
১২ জুন ২০১৬, রবিবার,
সারাদেশে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অন্যায়ভাবে গণ-গ্রেফতারের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার আজ ১২ জুন প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “সরকার পবিত্র এ রমজান মাসে সারাদেশে অন্যায়ভাবে গণ-গ্রেফতার অভিযান চালিয়ে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করে রমজানের পবিত্রতা ক্ষুন্ন করছে। 
 
গত ২৪ ঘণ্টায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী রংপুর জেলার গংগাচরা উপজেলা জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলামসহ ৫ জন কর্মীকে, মানিকগঞ্জ সদর দক্ষিণ সাংগঠনিক উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা নূরুল ইসলাম ও হরিরামপুর উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারী জনাব সেকান্দর আলী, যশোর শহরে একজন মহিলাসহ ৬ জন কর্মীকে, যশোর পূর্ব সাংগঠনিক জেলা জামায়াতের ১৫ জন কর্মীকে, যশোর পশ্চিম সাংগঠনিক জেলা জামায়াতের ৬ জন কর্মীকে ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের ১ জন কর্মীকে, ঝিনাইদহে জামায়াতের ৬ জন কর্মী ও ছাত্রশিবিরের ৪ জন কর্মীকে, কুষ্টিয়ায় জামায়াতের ১৩ জন কর্মীকে, মাগুরায় জামায়াতের ৭ জন কর্মীকে, নড়াইলে জামায়াতের ১ জন কর্মীকে, মেহেরপুরে জামায়াতের ১ জন কর্মীকে, সিলেট মহানগরীতে জামায়াতের ১ জন কর্মীকে, হবিগঞ্জে জামায়াতের ২ জন কর্মীকে, মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রশিবিরের সভাপতি মাহফুজ সুমনকে, সিলেট উত্তর সাংগঠনিক জেলায় জামায়াতের ২ জন কর্মীকে, সিলেট দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলায় জামায়াতের ১ জন কর্মীকে, ঠাকুরগাঁওয়ে জামায়াতের ৪ জন কর্মীকে, দিনাজপুরে জামায়াতের ৩ জন কর্মীকে, পঞ্চগড়ে জামায়াতের ১ জন কর্মীকে, নীলফামারীতে জামায়াতের ১ জন কর্মীকে ও সুনামগঞ্জে জামায়াতের ১ জন কর্মীসহ সারাদেশে জামায়াতে ইসলামী এবং ইসলামী ছাত্রশিবিরের বহু সংখ্যক নেতা-কর্মীকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে।
 
সরকার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দিয়ে এ পবিত্র রমজান মাসে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের রোজাদার নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে নির্যাতন চালিয়ে কষ্ট দিয়ে অমানবিক কাজ করছে। ইসলামের প্রতি বিশ্বাস থাকলে সরকার এভাবে রোজাদার নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করে কষ্ট দিতে পারত না। পবিত্র রমজান মাসে গ্রেফতার অভিযান চালিয়ে রোজাদার লোকদের হয়রানি করার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার জন্য আমি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।
 
পবিত্র এ রমজান মাসের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে গ্রেফতার অভিযান বন্ধ করে সারাদেশে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের গ্রেফতারকৃত সকল নেতা-কর্মীদের অবিলম্বে নিঃশর্তভাবে মুক্তি দেয়ার জন্য আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”