Thursday, 21st January, 2021
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
দেশের জনগণের উপর স্বৈরশাসন চালিয়ে সরকার জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে
১০ জুন ২০১৬, শুক্রবার,
গত ৯ জুন রাতে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, নেত্রকোনা, নড়াইল, মুন্সীগঞ্জ, কুমিল্লা, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, ফেনী ও টাঙ্গাইলসহ সারাদেশে জামায়াতে ইসলামী এবং ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের পুলিশের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার আজ ১০ জুন প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আন্দোলন বন্ধ করার উদ্দেশ্যেই সরকার সংগঠনের তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে জেলে পাঠাচ্ছে।  

গত ৯ জুন রাতে ব্রাহ্মণবাড়ী জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর জনাব গোলাম ফারুককে, বাঞ্চারামপুর উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা মাজেদুল ইসলামসহ ৮ জন নেতা-কর্মীকে, নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান মাওলানা রুহুল আমীন, নেত্রকোণা সদর উপজেলা জামায়াতের আমীর মাস্টার নজরুল ইসলামকে, মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদীখান উপজেলা জামায়াতের আমীর অধ্যাপক ফখরুদ্দিন রাজীকে ও নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া পৌরসভা জামায়াতের সভাপতি কাজী আতাউর রহমানসহ ২ জন কর্মীকে ও আজ ১০ জুন ভোরে নড়াইল জেলা জামায়াতের সাংগঠনিক সেক্রেটারী মাওলানা অহিদুজ্জামানকে, কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলা জামায়াতের আমীর আবদুল আওয়ালসহ তিন জন নেতা-কর্মীকে, চাঁদপুরে ৫ জন নেতা-কর্মীকে, লক্ষ্মীপুর জেলায় ২৩ জন নেতা-কর্মীকে, ফেনীতে ৫ জন নেতা-কর্মীকে, টাঙ্গাইলে ছাত্রশিবিরের ১০ জন নেতা-কর্মীকে, বিজয় নগর উপজেলা ইসলামী ছাত্রশিবিরের সভাপতি মাহমুদুল হাসান ও তার ৩ ভাইসহ সারা দেশে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের বহু নেতা-কর্মীকে পুলিশ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে।  

দেশের জনগণের উপর স্বৈরশাসন চালিয়ে সরকার জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সরকারের জনপ্রিয়তা শূন্যের কোঠায় নেমেছে। গণবিচ্ছন্ন সরকার জামায়াতের নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে শক্তির জোরে ক্ষমতায় থাকার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। জনমত উপেক্ষা করে শক্তির দাপটে বেশী দিন ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না। সরকারের জুলুম-নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার জন্য আমি দেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। 

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর জনাব গোলাম ফারুকসহ সারা দেশে জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের গ্রেফতারকৃত সকল নেতা-কর্মীদের অবিলম্বে মুক্তি দেয়ার জন্য আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”