Wednesday, 08th April, 2020
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
জামায়াত সম্পর্কে হাসানুল হক ইনুর মন্তব্যের প্রতিবাদঃ এ ধরনের নোংরা রাজনীতি বন্ধ করার আহ্বান
২১ জুলাই ২০১৬, বৃহস্পতিবার,
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু গত ২০ জুলাই দিবাগত রাতে এটিএন নিউজের নিয়মিত অনুষ্ঠান নিউজ আওয়ার এক্সট্রায় “জামায়াত হাজার বছরের মুসলিম রীতি-নীতি যা দেশে চর্চা হয়, সেই রীতি-নীতিকে ধ্বংস করছে” মর্মে যে মন্তব্য করেছেন তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার আজ ২১ জুলাই প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী নেতা-কর্মীরা পবিত্র কুরআন-হাদীস অধ্যয়ন করে এবং সে অনুযায়ী দেশের জনগণের নিকট ইসলামের দাওয়াত দেয়। ইনু সাহেব যে বক্তব্য রেখেছেন, তা হাস্যকর। তিনি জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্যই এ ধরনের বক্তব্য দিচ্ছেন। 
 
ইনু সাহেবদের মূল দর্শনই হল সমাজতন্ত্র। আর সমাজতন্ত্র ধর্মকে ‘আফিম’ হিসেবে আখ্যায়িত করে। হঠাৎ করে ইনু সাহেব কী কারণে ইসলাম সম্পর্কে কথা বলা শুরু করলেন তা আমাদের বোধগম্য নয়। ধর্মের অপব্যবহার জামায়াতে ইসলামী কখনো করে না। বরং যারা ধর্মে বিশ্বাস করে না তারাই ধর্মের কথা বলে ধর্মের অপব্যবহার করে থাকে। যুগ যুগ ধরে এ দেশে ইসলামী রীতিনীতি চালু আছে তা ধ্বংস করার জন্যই ইনু সাহেবরা অতীতে কাজ করেছেন এবং এখনও করে যাচ্ছেন। ইনু সাহেবদের মুখে তাই ধর্মের কথা মানায় না। আমি ইনু সাহেবের এ ধরনের বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি। 

জামায়াতে ইসলামী মুসলমানদের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করার জন্য কখনই কোন কাজ করে না। বরং ইনু সাহেবরাই জনগণের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করে ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করতে চায়। ইনু সাহেবদের জনগণ ভালভাবেই চেনেন এবং জনগণ ভোট প্রদানের সুযোগ পেলে তার সঠিক জবাব দেবেন। 

এটিএন নিউজ-এ যে ভিডিওটি প্রচার করা হয়েছে তার বক্তার পরিচয় বলা হয়নি। এতে জনগণের মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হচ্ছে যে, তারা নিজেরাই একটি ভিডিও তৈরী করে জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য অপপ্রচার চালাচ্ছে। এ ভিডিওটির সাথে জামায়াতে ইসলামীর কোন সম্পর্ক নেই। ইনু সাহেবদের এ ধরনের নোংরা রাজনীতি বন্ধ করার জন্য আমি আহ্বান জানাচ্ছি।”