Thursday, 21st January, 2021
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
শহীদ নিজামীকে রাষ্ট্রীয় হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে দেশব্যাপী হরতালের সমর্থনে শান্তিপূর্ণ মিছিল ও সমাবেশ
১২ মে ২০১৬, বৃহস্পতিবার,
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরীর কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন বলেছেন, সরকার দেশ থেকে ইসলাম ও ইসলামী মূল্যবোধ ধ্বংস করতেই একের পর এক ইসলামিক স্কলারদের হত্যা করে দেশকে মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছে। সে ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিকতায় তারা আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ইসলামী চিন্তাবিদ, উপমহাদেশের বরেণ্য আলেমে দ্বীন ও আমীরে জামায়ত মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীকে নির্মম ও নিষ্ঠুরভাবে শহীদ করেছে। এই নিষ্ঠুর হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজপথে নেমে এসেছে। তারা হরতাল সর্বাত্মকভাবে সফল করে গণবিরোধী ও খুনী সরকারকে গণধিক্কার দিয়েছে। তিনি হরতাল সফল করায় নগরবাসীকে অভিনন্দন  এবং হরতাল কর্মসূচী ১৩ মে সকাল ৫টা পর্যন্ত অব্যাহত রাখার আহবান জানান।
 
তিনি আজ রাজধানীতে আমীরে জামায়াত মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীকে নির্মম ও নিষ্ঠুরভাবে হত্যার প্রতিবাদে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী ঢাকা মহনগরী আয়োজিত এক মিছিল পরবর্তী সমাবেশে একথা বলেন। মিছিলটি মোহাম্মদপুর বাসষ্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জামায়াত নেতা আব্দুল হান্নান, আব্দুল ওয়াজেদ, আবু নাঈম, আজহার মুন্সী, আজিজুল হক, ইমরান হাসান তারিফ, শাকিব, ছাত্রনেতা রবিউল ইসলাম, মোখলেছুর রহমান ও বোরহান উদ্দীন প্রমূখ।
 
মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন বলেন, সরকারের বিরাজনীতিকরণের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসাবেই একের পর এক জাতীয় নেতৃবৃন্দকে হত্যা করে দেশ ও জাতিস্বত্ত্বাকে রক্তাক্ত ও কলঙ্কিত করা হচ্ছে। সরকার মাওলানা নিজামীর  জনপ্রিয়তা, গ্রহণযোগ্যতা ও ব্যক্তিত্বে ঈর্শ্বাকাতর হয়ে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে এই বয়োবৃদ্ধ আলেমে দ্বীনকে হত্যা করেছে। যা বিশ্ব ইতিহাসের এক কলঙ্কজনক অধ্যায়। কিন্তু ইতিহাস সাক্ষী কোন আলেমে দ্বীনকে অন্যায়ভাবে হত্যার পরিণতি কখনোই সুখকর হয়নি বরং হত্যাকারীরাই  ইতিহাসের পাতা থেকে মুছে গেছে। তিনি ন্যায়-ইনসাফের সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শহীদ মতিউর রহমান নিজামীসহ সকল শহীদের রক্তের বদলা নেয়া হবে বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
 
শাহ আলী থানা
আমীরে জামায়াত মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীকে  হত্যার প্রতিবাদে হরতালের সমর্থনে শাহ আলী থানার উদ্যোগে ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। থানা আমীর আবুল হাসান, সেক্রেটারী আহমাদ হাসনাত রবিসহ ওয়ার্ড সমূহের জনশক্তি মিছিলে উপস্থিত ছিলেন।
 
কোতয়ালী থানা
সকাল ৫.৩০ টায় কোতয়ালী থানার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর বাবুবাজার এলাকায় এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা আমীর আবু আবদুল্লাহ। উপস্থিত ছিলেন সেক্রেটারী এম আর আজাদ, এক এম নায়িম, আহাদুল্লাহ, ডা: আবুল নাসের, আবু বকর, মো: ইদ্রিস,শাহজাহান, কামাল,ছাত্রনেতা বেলাল ও ফয়সাল প্রমুখ।
১.৪৫ টায় কোতয়ালী ও বংশাল থানার উদ্যোগে হরতালের সমর্থনে নয়াবাজার এলাকায় আরও মিছিল অনুষ্ঠিত। উপস্থিত ছিলেন বংশাল থানা আমীর আবু আফজাল, কোতয়ালী থানা আমীর আবু আব্দুল্লাহ, জামায়ত নেতা শামীম, আমীর হোসেন, গিয়াস উদ্দীন, হোসেন আলী, রাশেদ সিদ্দিকী, ইলিয়াস ও  ছাত্রনেতা মোফাজ্জল হোসেন প্রমূখ।
 
চকবাজার থানা
সকাল ৫.৪৫ টায় চকবাজার থানার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর চকবাজার সোয়ারীঘাট এলাকায় এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা আমীর আল আমিন। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী আতাউর রহমান, আবদুর রহমান, কলিমুল্লাহ, মো: জহিরউদ্দিন, মো: খায়রুল, মো: আল ইসলাম, আব্দুল্লাহ, রফিকুল ইসলাম, মোকসেদ উল্লাহ ও ছাত্রনেতা তানভীর  প্রমুখ
 
লালবাগ থানা
সকাল ৫.৪০ টায় লালবাগ থানার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর লালবাগ এলাকায় এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা আমীর আবু আনাস। এতে উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী নজরুল ইসলাম, আব্দুল ওহাব ও মহসিন উদ্দিন প্রমুখ।
 
বংশাল থানা
সকাল ৫.৩০ টায় বংশাল থানার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর ফেন্সি সড়ক এলাকায় এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা আমীর আবু আফজাল। এতে উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী শোকর আলী, জামায়াত নেতা শামীম,আমীর হোসেন, হোসেন আলী,রাশেদ সিদ্দিকী ও ইলিয়াছ প্রমুখ।
 
কামরাঙ্গীরচর থানা
সকাল ৫.৩০ টায় কামরাঙ্গীরচর থানার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর বেড়িবাধ এলাকায় এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা আমীর মাহমুদুল হাসান। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী নুরুল ইসলাম, আবু বকর,আজগর আলী ও ছাত্রনেতা আনিসুর রহমান প্রমুখ।
 
যাত্রাবাড়ি পশ্চিম থানা
সকাল ৫.৪৫ টায় যাত্রাবাড়ি পশ্চিম থানার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর দয়াগঞ্জ নতুন সড়কে এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা আমীর আবু ফতেহ, আসাদুজ্জামান, মুহাম্মদ হোসাইন, আনোয়ার হোসাইন, ইমাম হোসাইন, জাকির হোসাইন, সাইদুল ইসলাম, মুকতার আলী ও ছাত্রনেতা আতিকুর রহমান প্রমুখ।
 
শ্যামপুর থানা
হরতালের প্রথম প্রহরে জামায়াত শ্যামপুর  থানা আর্সিনগেট মোড় থেকে মিছিল বের করে। শ্যামপুর থানা জামাতের সেক্রেটারি এন আহমেদ এর নেতৃত্বে মিছিলটি বের হয়। উপস্থিত ছিলেন শিবির পোস্তগোলা থানা সভাপতি এম এ রহমান ইয়াফি,সেকেটারী তানভীর আহমেদ,জামাত নেতা গনি,জাহাঙ্গির শিবির নেতা আহমদ উল্লাহ,কামালহোসেন।
 
বিমানবন্দর থানা
হরতালের সর্ম্থনে বিমানবন্দর থানার  উদ্যোগে আজ সকালে আসকোনা পানির পাম্প এলাকায় এক বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলে নেতৃত্বদেন থানা আমীর আবু ফারহান মোঃ মুহিব। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী মোঃ ইব্রাহিম খলিল, এম এ খান মোল্লা, খন্দকার সাব্বির সওদাগর,  হাসেম বেপারী, সামিম হোসেন ও ইসলামী ছাত্র শিবিরের থানা সভাপতি জনাব ইঞ্জিঃ আমিনুর রহমান, সেক্রেটারী মীর সিহাব। মিছিলটি বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে এক পথ সভার মাধ্যমে শেষ হয়।  
 
বাড্ডা-ভাটারা থানা
সকাল ৫.৪৫ টায় বাড্ডা-ভাটারা থানার যৌথ উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর নতুন বাজার এলাকায় এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা সেক্রেটারী বাড্ডা থানার সেক্রেটারী কুতুব উদ্দিন ও ভাটারা থানার সেক্রেটারী বাসার খান। উপস্থিত ছিলেন উপস্থিত ছিলেন শিবির নেতা জামিল মাহমুদ, জাহিদুর রহমান ও তরিকুল ইসলাম প্রমুখ।
 
খিলগাও থানা
সকাল ৬.৩০, সিপাহিবাগ ক্লাব মোর থেকে ইদগাহ রোড, থানা আম্যীর আব্দুল্লাহ আল আমীন, সেক্রেটারী এস এম জুয়েল  ও থানা শিবির সভাপতি মুজিবুর রহমান প্রমূখ।
 
গুলশান থানা
হরতালের সমর্থনে গুলশান থানার উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল গুলশান থানা সেক্রেটারী আবু জুনায়েদের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মিছিলে আরো উপস্থিত ছিলেন থানা কর্মপরিষদ সদস্য, মু. জামান, হুসাইন, জানে আলম ও ছাত্রশিবির গুলশান থানা সভাপতি আকাশ ও  সেক্রেটারী আলকামিন প্রমুখ।  মিছিলটি সৌদি মসজিদ এর সামনে থেকে শুরু হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে এক সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।
 
শেরেবাংলা নগর থানা
জামায়াত নেতা সোহেল খানের নেতৃত্বে শেরে বাংলা নগর থানার উদ্যোগে হরতালের সকাল ৬ টায় ফার্মগেটের ইনার রোডে মিছিল হয়। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন আকতার হোসেইন, ছাত্রনেতা রাফি ও  মোঃ মহিউদ্দিন প্রমূখ।
 
কদমতলী পূর্ব থানা 
হরতালের সমর্থনে সকাল ৬টায় রাজধানীর শনিআখড়ায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াতে ইসলামী কদমতলী পূর্ব থানা। থানা সেক্রেটারি মনির হোসাইনের নেতৃত্বে মিছিলে আরো উপস্থিত ছিলেন কামাল উদ্দিন, ওবাইদুল হক, দলিল উদ্দিন, ছাত্রনেতা নাছিরুল্লাহ, আবু বকর, শিহাব উদ্দিন, তইমুজ ও বেলাল প্রমূখ।
 
কদমতলী পশ্চিম থানা
হরতালের সমর্থনে সকাল ৬টায় রাজধানীর ডেমরা এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াত ও শিবিরের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি ডেমরার ডগাইর বাজার থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বটতলা গিয়ে শেষ হয়। থানা আমীর আব্দুর রহিমের নেতৃত্বে মিছিলে আরো উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারি আলী হোসেন, মেসবাহ উদ্দিন, মিজানুর, গাফ্ফার, শরীফ ও আশরাফ প্রমূখ।
 
তেজগাঁও থানা
হরতালের সমর্থনে সকাল ৬টায় রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে জামায়াত ও শিবিরের নেতাকর্মীরা। তেজগাঁও থানা আমীর সালাউদ্দীনের নেতৃত্বে মিছিলে উপস্থিত ছিলেন নায়েবে আমীর নেয়ামুল করিম, সেক্রেটারি নোমান আহমেদী ও জামায়াত নেতা ফরিদ, জাফর।
 
রূপনগর ও পল্লবী থানা
সকাল ৬ টায় মিরপুর ১১ নং বাস স্ট্যান্ড এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল হয়। আশরাফুল আলম , নাসির উদ্দিন , জামাল উদ্দিন , সাইফুল ইসলাম , গাজী মোস্তফা কামাল ও ছাত্র নেতা যোবায়ের, আব্দুর রহমান প্রমূখ।
 
উত্তরা পশ্চিম থানা
২৪ ঘন্টা হরতালের সমর্থনে  উত্তরা পশ্চিম থানার উদ্যোগে সকাল ৬.৩০ ঘটিকায় হাউজ বিল্ডিং এলাকায় মিছিল ও পিকিটিং করা হয়। নেতৃত্ব দেন জামায়াত নেতা এডভোকেট বি.এইস. সুজা। আরও ছিলেন থানা সেক্রেটারী আবদুল্লাহ রেজা, সানু, এম.আলম, ইঞ্জি. ফারুক, ম্যাক্স, আজিম, তরিক ও ছাত্র শিবির থানা সভাপতি ওমর ফারুক, সেক্রেটারী মমিন, রাশেদুল, বাবুল, ইমরান ও সাব্বির প্রমুখ। মিছিলটি থানার গুরুত্বপূর্ন সড়ক প্রদক্ষিন শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।
 
উত্তরা পূর্ব থানা
২৪ ঘন্টা হরতালের সমর্থনে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী উত্তরা পূর্ব থানার উদ্যোগে সকাল ৬.৩০ ঘটিকায় উত্তরার প্রানকেন্দ্র রাজলক্ষ্মী এলাকায় মিছিল ও পিকিটিং করা হয়। নেতৃত্ব দেন জামায়াত নেতা থানা অফিস সেক্রেটারি মাহবুব ফেরদৌসী । উপস্থিত ছিলেন থানা কর্মপরিষদ সদস্য রাগিব হাসনাত,স্থানীয় জামায়াত নেতা হাসান আলি,রুহুল আমিন, ইয়াকুব আলি, আবসার উদ্দিন প্রমুখ। মিছিলটি থানার গুরুত্বপূর্ন সড়ক প্রদক্ষিন শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের  মাধ্যমে শেষ হয়।
 
তুরাগ থানা
হরতালের সমর্থনে সকাল ৬.০০ তুরাগ থানা উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিলের  আয়োজন করা হয়। উক্ত মিছিলে থানা আমীর  মেসবা উদ্দিন নাঈমের সভাপতিত্বে থানা সেক্রেটারী এস আর মোল্লার নেতৃত্বে মিছিলটি অনুষ্ঠিত হয়।  উপস্থিত  থানা কর্ম পরিসদ সদস্য মনির হোসেন, ৭নং দক্ষিণ ওয়ার্ড সভাপতি, আবু হানিফ , কেরামত আলী, আলী হোসেন,  সহ বিভিন্ন ওয়ার্ড সেক্রেটারীগণ।এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ছাত্র শিবিরের  থানার সভাপতি সেক্রেটারীসহ প্রায় অর্ধশতাধিক নেতা কর্মী। মিছিলটি  তুরাগ থানার যাত্রাবাড়ী মার্কেট থেকে শুরু হয়ে মুল সড়ক প্রদক্ষিন করে এক পথ সভার মাধ্যমে শেষ হয়।
 
মিরপুর পূর্ব থানা
হরতালের সমর্থনে বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী মিরপুর পূর্ব থানার মিছিল বেগম রোকেয়া স্মরণীতে কাজী পাড়ায় শুরু হয়ে আল হেলাল হাসপাতালে এসে শেষ হয় । মিছিলে নেতৃত্ব দেন ঢাকা মহানগরীর কর্ম পরিষদ সদস্য ও মিরপুর পূর্ব থানা আমির মাহফুজুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারি আব্দুল্লাহ জুবায়ের , এনামুল, সেলিম ও অরাফাত সহ শিবির পূর্ব থানা ও স্কুল থানার সভাপতি সহ আরো অনেকে।
 
কলাবাগান থানা ও নিউমার্কেট থানা
হরতালের সমর্থনে জামায়াতে ইসলামী কলাবাগান থানা ও নিউমার্কেট থানার উদ্যোগে নগরীর সেন্ট্রাল রোডে বিক্ষোভ মিছিল ও পিকেটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে । কলাবাগান থানা সেক্রেটারি আবু জয়নবের নেতৃত্বে উক্ত মিছিলে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ছাত্র শিবির ঢাকা কলেজ শাখা সভাপতি মতিউর রহমান, জামায়াত নেতা জাহিনূর রহমান, মাসুদ, আজাদ শেখ, মূসা এবং ছাত্রনেতা ফাহিম, জুলফিকার ও  মুন্না প্রমুখ ।
 
মুগদা থানা
হরতাল কর্মসূচী বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আজ সকাল ৭ঃ০০টায় রাজপথে মিছিল বের করে মুগদা জামায়াত। থানা আমীর জনাব রিফাত আহমদের নেতৃত্বে মুগদা বাসার টাওয়ার থেকে মিছিল শুরু হয়ে মুগদা চৌরাস্তা, মদিনাবাগ কাঁচাবাজার সহ বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে মদিনাবাগ কিন্ডার গার্ডেনের সামনের সড়কে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। থানা সেক্রেটারী আবু খুবাইব এর পরিচালনায় এসময় থানা আমীর সকলকে রাজপথে থেকে হরতাল পালন করার আহবান জানান। তিনি আরও বলেন, জাতীয় ও ইসলামী নেতৃবৃন্দকে হত্যার মাধ্যমে সরকার ক্ষমতাকে দীর্ঘস্থায়ী করার স¦প্নে বিভোর, কিšু‘ ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা বেঁচে থাকতে তা হতে পারেনা। এসময় ছাত্রশিবিরের মুগদা থানা সভাপতি এবং  জামায়াতের বিভিন্ন ওয়ার্ড দায়িত্বশীলসহ আরও অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।
 
দক্ষিণখান থানা
সকাল ৬.৫০ টায় থানা আমীর মোঃ মনিরুল হকের নেতৃত্বে হরতালের সমর্থনে দক্ষিণখান থানা জামায়াতের মিছিল বের হয়। উপস্থিত ছিলেন থানা শুরা ও কর্মপরিষদ সদস্য মোঃ নজরুল ইসলাম শহীদ, মোহাম্মদ আলী, মোঃ আশরাফুল আলম, ছাত্রশিবির সভাপতি যাকিরুল ইসলাম, জামায়াত নেতা ইলিয়াস আহমেদ, আবু সাঈদ, আবুল কালাম আজাদ, আবদুর রশিদসহ জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের স্থানীয় নেতাকর্মীবৃন্দ।
 
রমনা থানা
রমনা থানার উদ্যোগে হরতালের সমর্থনে মজবাজারে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় উপস্থিত ছিলেন নায়েবে আমীর আহসান হাবিব, শুরা সদস্য মাহবুব হাসান, ছাত্রশিবিরের মহানগর পূর্ব শাখার এইচ আরডি সম্পাদক ইমাম হুসাইন, জুবায়ের আহমদ, আনিছুর রহমান ও আবু ইউসুফ প্রমূখ।
 
যাত্রাবাড়ী পূর্ব থানা
যাত্রাবাড়ী পূর্ব থানার উদ্যোগে রাজধানীতে হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। থানা আমীর নিজামুল হকের নেতৃত্বে মিছিলে  উপস্থিত ছিলেন আব্দুল করিম, রমজান আলী, আশরাফ আলী, মাসুম তারিফ, ছাত্রনেতা রিয়াজ উদ্দিন প্রমূখ। পুলিশ মিছিলে টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে এবং ১ জনকে গ্রেফতার করে।
 
সবুজবাগ থানা 
সকাল সাড়ে ৮টায় সবুজবাগের নন্দীপাড়া ব্রীজের উপর বিক্ষোভ ও পিকেটিং করেছে জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীরা। সবুজবাগ থানা সেক্রেটারি আব্দুল বারির নেতৃত্বে মিছিলে আরো উপস্থিত ছিলেন থানা কর্মপরিষদ সদস্য আবু নোমান, নাছিরউদ্দিন মজুমদার, জামায়াত নেতা মাসুম ও ছাত্রনেতা হাফিজ প্রমূখ।
 
শাহজাহানপুর থানা 
মহানগরী মজলিশে শুরা সদস্য ও থানা আমীর মুহাম্মদ শামছুর রহমানের নেতৃত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন মোঃ শহিদুল ইসলাম, মাহমুদুর রহমান লাবু, ইব্রাহিম খলিল মহসীন, মোস্তাক আহমেদ, মোশাররফ হোসাইন, ছাত্রনেতা হাসান মাহফুজ, মোঃ মুহিব্বুল্লাহ প্রমুখ। সকাল ৮.৩০ টায় আমতলা মোড় থেকে শুরু হয়ে খিলগাও রেলগেটে গিয়ে শেষ হয়।
 
পল্টন থানা
সকাল ৯ টায় পল্টন থানার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার হরতালের সমর্থনে রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড়ে এক মিছিল বের করে। মিছিলে নেতৃত্ব প্রদান করেন থানা সেক্রেটারী আমিনুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন শিবির ঢাকা মহানগরী পূর্বে সেক্রেটারী সোহেল রানা মিঠু, জামায়াত নেতা এ কে এম মনির হোসাইন, আব্দুর রহমান, আ.ফ.ম ইউসুফ, সুলতান উদ্দিন, হাসান আল বান্না, আলমগীর হোসাইন, ছাত্রনেতা নূরুল ইসলাম প্রমুখ। মিছিল শেষে পল্টন মোড়ে ব্যাপক পিকেটিং করা হয়। এসময় পুলিশের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
 
মোহাম্মদ-আদাবর থানা
হরতালের সমর্থনে মোহাম্মদপুর ও আদাবর থানার যৌথ উদ্যোগে নগরীতে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি ক্যাম্পের বাজার থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগরীর মজলিশে শুরা সদস্য ডা. শফিউর রহমান, জামায়াত নেতা আব্দুল হান্নান ও আব্দুল ওয়াজেদ কিরণ প্রমূখ।
 
বনানী থানা
হরতালের সমর্থনে বনানী থানার উদ্যোগে নগরীতে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারি মাহমুদুর রহমান ও ছাত্রনেতা জামাল হোসেন প্রমূখ।
 
ধানমন্ডি-হাজারীবাগ থানা
হরতালের সমর্থনে ধানমন্ডি ও  হাজারীবাগ থানার যৌথ উদ্যোগে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন ধানমন্ডি থানা সেক্রেটারি মোহাম্মদ আলী ও জামায়াত নেতা আব্দুর রহমান প্রমূখ।
 
মতিঝিল থানা
সকাল ৯.১০ মিনিটে বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী মতিঝিল থানা শাখার উদ্ধোগে মতিঝিলে হরতালের সমর্থনে মিছিল করে, উক্ত মিছিলে নেতৃত্ব দেন থানা সেক্রেটারী- মোতাছিম বিল্লাহ, আরও উপস্থিত ছিলেন নূর মোহাম্মদ, হাফিজ উল্লাহ খান, ছাত্র নেতা আশরাফুল হক ও আবুল খায়ের প্রমূখ। 
 
 

এছাড়াও রাজশাহী, বরিশাল, খুলনা, রংপুর, কুমিল্লা, গাজীপুর, নোয়াখালী, দিনাজপুর, ময়মনসিংহ, পাবনা, ফেনী, সিরাজগঞ্জ, ফরিদপুর, সাতক্ষীরা, ফরিদপু্‌র, নারায়াণগঞ্জ, বরগুনা, টাঙ্গাইল, মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ, কক্সবাজার, ও দেশের আরো বিভিন্ন স্থানে  শান্তিপূর্ণভাবে সর্বাত্মক হরতাল পালিত হয়।