Friday, 10th July, 2020
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
আগামী ২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সারা দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা
২৪ নভেম্বর ২০১৫, মঙ্গলবার,
জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে রাষ্ট্রীয়ভাবে হত্যা, সারা দেশে জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের ঠা-া মাথায় হত্যা, গুম এবং অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে নির্যাতন চালানোর প্রতিবাদে আগামী ২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সারা দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী জেনারেল ডা: শফিকুর রহমান আজ ২৪ নভেম্বর প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “সরকার গণতান্ত্রিক পন্থায় রাজনৈতিকভাবে জামায়াতে ইসলামীকে মোকাবেলায় ব্যর্থ হয়েই জামায়াতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে সাজানো মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদেরকে রাষ্ট্রীয়ভাবে হত্যা করছে এবং ঠান্ডা মাথায় সারাদেশে নেতা-কর্মীদের হত্যা, গুম ও অন্যায়ভাবে গ্রেফতার অভিযান চালিয়ে জামায়াত এবং ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের জেলখানায় পাঠিয়ে তা ভরে ফেলেছে।  

জামায়াতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যা ও সারা দেশে নেতা-কর্মীদের হত্যা, গুম এবং অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করার মধ্য দিয়ে সরকারের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বই অত্যন্ত নগ্নভাবে প্রকাশিত হয়েছে। গতকাল যশোরের আসিফ ভিলা নামক একটি ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে ইসলামী ছাত্রশিবিরের স্থানীয় নেতা ও এমএম কলেজের ছাত্র হাবিবুল্লাহ ও কামরুল ইসলামকে পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে এবং ছাত্রশিবিরের নেতা আল-মামুনকে গুরুতরভাবে আহত করেছে। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং এ ঘটনার সাথে জড়িত ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। সেই সাথে হাবিবুল্লাহ ও কামরুল ইসলামের শাহাদাত কবুল করার জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করছি এবং তাদের শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে দোয়া করছি আল্লাহ তাদের এ শোক সহ্য করার তাওফীক দান করুন এবং আহত আল-মামুনের আশু আরোগ্য কামনা করছি। 

এভাবে সরকারী দলের সন্ত্রাসীরা বহু মায়ের বুক খালি করেছে, অসংখ্য স্ত্রীকে বিধবা করেছে ও মাসুম বাচ্ছাদের এতিম করেছে। তাদের বুক ফাটা কান্না ও হাহাজারীতে আজ আকাশ-বাতাস ভারী হয়ে উঠছে। আর কোন মায়ের বুক যাতে খালি না হয় এবং মাসুম বাচ্চারা এতিম না হয় সে জন্য সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া প্রয়োজন। অন্যথায় এ আত্মঘাতি সন্ত্রাসী তা-ব বন্ধ করা যাবে না। 

জামায়াতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যা করে এবং নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে কখনো ইসলামী আন্দোলনকে ধ্বংস করা যাবে না। জনগণের উপর জুলুম-নির্যাতনের কারণে স্বৈরশাসনেরই পতন ঘটবে। জালেম সরকারের স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার জন্য আমি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যা করা এবং সারা দেশে নেতা-কর্মীদের ঠান্ডা মাথায় হত্যা, গুম ও গণহারে গ্রেফতার করার প্রতিবাদে আমি আগামী ২৬ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার সারা দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করছি।

ঘোষিত এ কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে সফল করার জন্য আমি জামায়াতের সকল শাখার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি এবং দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করছি।”