Friday, 10th July, 2020
Choose Language:

সর্বশেষ
সংবাদ
২৩ নভেম্বর সোমবার আহূত হরতাল শান্তিপূর্ণ ও সর্বাত্মকভাবে পালন করার আহ্বান
২২ নভেম্বর ২০১৫, রবিবার,
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক মন্ত্রী জনাব আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদকে মিথ্যা ও সাজানো মামলায় ফাঁসির কাষ্ঠে ঝুলিয়ে হত্যা করার প্রতিবাদে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে আগামীকাল ২৩ নভেম্বর সোমবার আহূত হরতাল শান্তিপূর্ণ ও সর্বাত্মকভাবে পালন করার আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান আজ ২২ নভেম্বর এক বিবৃতি প্রদান করেনঃ- 

বিবৃতিতে তিনি বলেন, “স্বৈরাচারী সরকারের নির্দেশে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সকল বাধা উপেক্ষা করে সারা দেশে লক্ষ লক্ষ জনতা একত্রিত হয়ে শহীদ আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের উদ্দেশ্যে গায়েবানা জানাজায় শরীক হন এবং দোয়া করেন। আমি আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে এ জানাজায় অংশগ্রহণকারী সর্বস্তরের জনগণকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। দেশে-বিদেশে হাজার হাজার নামাজে জানাজায় কোটি কোটি মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এর দ্বারা এটাই প্রমাণিত হয় যে, জনাব মুজাহিদের বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ সরকার এনেছে তা সাজানো ও মিথ্যা। জনগণ সরকারের এ মিথ্যাচারকে গ্রহণ করেনি। 

দেশের বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠিত গায়েবানা নামাজে জানাজায় সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে বাধা দেয়া হয়েছে এবং ঢাকা ও চাঁদপুরসহ কয়েকটি জায়গায় গায়েবানা নামাজে জানাজায় অংশগ্রহণকারী কয়েকজন মুসল্লীকে গ্রেফতার করেছে।  এমনকি চাঁদপুরে তিনজনকে সম্পূর্ণ বেআইনীভাবে ৬ মাসের কারাদ- প্রদান করা হয়েছে। জানাজার মত ধর্মীয় অনুষ্ঠান থেকে কয়েকজনকে গ্রেফতার ও তিনজনকে সাজা প্রদান করার মাধ্যমে এটাই প্রমাণিত হয় যে, এ সরকার ইসলামের ব্যাপারে কতটা বিদ্বেষী।

আমি অত্যন্ত দুঃখ ও বেদনার সাথে বলতে চাই যে, এ জালেম সরকার শহীদ মুজাহিদকে ফাঁসির কাষ্ঠে ঝুলানোর আগ মুহূর্ত পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করেছে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে শহীদ মুজাহিদ নাকি প্রেসিডেণ্টের নিকট প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করেছেন। শহীদ মুজাহিদের পরিবার এবং জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে সাথে সাথেই এর প্রতিবাদ জানিয়ে বলা হয়েছে যে, সরকারের বক্তব্য মিথ্যা এবং ষড়যন্ত্রমূলক। মৃত্যুর আগ মুহূর্তে একজন ব্যক্তি সম্পর্কে এ ধরনের মিথ্যা কথা তারাই বলতে পারে, যারা নিজেদের স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে সকল অপকর্ম করে থাকে। আমি সরকারের এহেন মিথ্যাচারের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

জনাব মুজাহিদ তার পরিবারের সাথে শেষ সাক্ষাতে বলেছেন, প্রেসিডেণ্টের নিকট প্রাণভিক্ষার আবেদনের কথা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমি প্রেসিডেণ্টের নিকট মার্সি পিটিশন করিনি। এর পরেও সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী অবলিলায় মিথ্যাচার চালিয়েই যাচ্ছেন। এই মিথ্যাচারীদের কাছে যখন সচেতন সাংবাদিকরা প্রাণভিক্ষার আবেদন দেখতে চেয়েছেন তখন এ কাপুরুষেরা বিভিন্ন ছুতানাতায় তা প্রদর্শণ করতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। এ থেকেই প্রমাণিত হয় যে, জনাব মুজাহিদের বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ রাজনৈতিক, প্রতিহিংসামূলক, মিথ্যা ও জালজালিয়াত দুষ্ট। বাংলাদেশের জনগণ যথাসময়ে সরকারের এ মিথ্যাচারের সঠিক জবাব দিবে ইনশাআল্লাহ। 

আমি আগামীকাল ২৩ নভেম্বর সোমবার আহূত হরতাল শান্তিপূর্ণভাবে সফল করার জন্য জামায়াতের সকল শাখার প্রতি আহবান জানাচ্ছি এবং দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করছি।”