১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
Choose Language:

সর্বশেষ
চলতি বিষয়াবলি
বাজারদর: লিটারে ৫ টাকা বাড়ল সয়াবিন তেল
২৯ জানুয়ারি ২০১৭, রবিবার,
বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ৫ টাকা বাড়িয়েছে দেশের ভোজ্যতেল বাজারজাতকারী কোম্পানিগুলো। এখন থেকে ভোক্তাদের এক লিটারের এক বোতল তেল কিনতে ব্যয় করতে হবে ১০৫ থেকে ১০৭ টাকা। এর আগে গত বছরের অক্টোবরে এসব কোম্পানি বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ৬ টাকা বাড়িয়েছিল।
 
রাজধানীর বাজারে গত সপ্তাহে নতুন দামে সয়াবিন তেল সরবরাহ শুরু করেছেন কোম্পানিগুলোর পরিবেশকেরা। তবে অনেক দোকানে কিছু কিছু পুরোনো দামের তেল রয়ে গেছে।
 
দেশে বোতলজাত সয়াবিন তেলের বাজার নিয়ন্ত্রণ করে মূলত সিটি গ্রুপ, মেঘনা গ্রুপ ও বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিডেট। সিটি ও মেঘনা তাদের তীর ও ফ্রেশ ব্র্যান্ডের সয়াবিন তেলের দাম ঠিক করেছে ১ লিটারের বোতল ১০৫ টাকা, ২ লিটার ২০৮ টাকা ও ৫ লিটার ৫২০ টাকা। বাংলাদেশ এডিবল অয়েলের ১ লিটারের বোতলের নতুন দাম ১০৭ টাকা, ২ লিটার ২১২ টাকা ও ৫ লিটার ৫২০ টাকা।
 
কারওয়ান বাজারের রূঁপচাদা ব্র্যান্ডের পরিবেশক আমির হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা আজ (শনিবার) থেকে নতুন দামে তেল সরবরাহ শুরু করেছি। বাকিরা আগেই দাম বাড়িয়েছে।’
চলতি মাসের শুরুতে তেলের মূল্যবৃদ্ধির কথা জানিয়ে বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের দ্রব্যমূল্য মনিটরিং সেলকে চিঠি দিয়েছিল বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন। চিঠিতে নতুন দর ১০ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হওয়ার কথা বলা হয়েছিল। ব্যবসায়ীরা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বেড়ে যাওয়ায় তাঁরাও মূল্য বৃদ্ধি করতে চান।
বিশ্বব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত অক্টোবর মাসে বিশ্ববাজারে সয়াবিন তেলের গড় দাম ছিল টনপ্রতি ৮৫৮ ডলার। ডিসেম্বরে গড় দাম ৯১১ ডলারে উন্নীত হয়েছে।
রাজধানীর বাজারে গত সপ্তাহে তেল ছাড়া অন্য কোনো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামে বিশেষ কোনো হেরফের হয়নি। চাল, চিনি ও ময়দার চড়ে যাওয়া দাম কমেনি। বাজারে মোটা চাল কেজি ৩৮-৪০ টাকা, চিনি ৬৮ থেকে ৭০ টাকা, ময়দা কেজি ৩৮ থেকে ৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে প্যাকেটজাত ময়দার দাম বেড়েছে। খুচরা বিক্রেতারা বলেন, সরবরাহকারী কোম্পানিগুলো ময়দার প্রতি দুই কেজির প্যাকেটের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ঠিক করেছে ৮৪ টাকা। যা আগে ৭৬ টাকা ছিল বলে জানান কারওয়ান বাজারের রিয়েল স্টোরের একজন বিক্রেতা।
চলতি মাসে হঠাৎ করে ময়দার দাম বেড়ে যায়। ব্যবসায়ীরা দাবি করেছেন, বাজারে কানাডীয় গমের সরবরাহ কমে যাওয়ায় ময়দার দাম বেড়েছে। দেশে কানাডীয় গম থেকে ময়দা তৈরি হয়।
পাইকারি বাজারে এখন প্রতি বস্তা ময়দা ১ হাজার ৭০০ থেকে ১ হাজার ৭৫০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। এতে কেজি পড়ছে ৩৫ টাকা। ময়দার দাম বাড়লেও বাজারে আটার দাম এখন পর্যন্ত বাড়েনি বলে জানিয়েছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা।
http://www.prothom-alo.com/bangladesh/article/1069641/%E0%A6%B2%E0%A6%BF%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A7%AB-%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A6%BE-%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A7%9C%E0%A6%B2-%E0%A6%B8%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A8-%E0%A6%A4%E0%A7%87%E0%A6%B2