২০ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার
Choose Language:

সর্বশেষ
বিবৃতি
স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন ব্যতীত অবাধ, সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়
২৬ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার,
মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদের নির্দেশে গত ২৫ জানুয়ারী নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের লক্ষ্যে যে ৬ সদস্য বিশিষ্ট সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে সে সম্পর্কে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারী জেনারেল ডাঃ শফিকুর রহমান আজ ২৬ জানুয়ারী প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন, “মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদের সাথে রাজনৈতিক  দলগুলোর সংলাপের পরে দেশবাসী আশা করেছিল যে, মহামান্য রাষ্ট্রপতি দেশের রাজনৈতিক দলসমূহ এবং দেশের জনগণের মতামত গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়ে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে নিরপেক্ষ লোকদের নিয়েই সার্চ কমিটি গঠন করবেন। কিন্তু তিনি যে ৬ সদস্য বিশিষ্ট সার্চ কমিটি গঠন করেছেন তাতে দেশের জনগণ চরমভাবে হতাশ হয়েছেন। 
 
রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে মহামান্য রাষ্ট্রপতির সংলাপের উদ্যোগের ফলে যে আশার আলো দেখা দিয়েছিল তা আজ হতাশায় পর্যবসিত হতে যাচ্ছে। জনগণ যে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের আশা করেছিল তা বাস্তবায়িত হওয়ার সম্ভাবনা অত্যন্ত ক্ষীণ। 
 
মহামান্য রাষ্ট্রপতি কর্তৃক গঠিত সার্চ কমিটি দেখে জনগণের মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে যে, বিদায়ী ব্যর্থ প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিব উদ্দিন আহমদ সম্প্রতি ‘পরবর্তী নির্বাচন কমিশন আমাদের মতই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন করবে।’ মর্মে যে হাস্যকর মন্তব্য করেছেন তাই কী বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে? এ ধরনের অপপ্রয়াস জাতির জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক। 
 
স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন ব্যতীত অবাধ, সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। পক্ষপাত দুষ্ট নির্বাচন কমিশন গঠনের যে আয়োজন চলছে তাতে হতাশ জনগণের মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে যে, তাহলে কী দেশের জনগণ তাদের ভোটের অধিকার আর ফিরে পাবে না? বাংলাদেশের গণতন্ত্রের আকাশে যে জমাট বাধা ঘন কালো মেঘ দেখা দিয়েছে তা কখন সরবে? 
 
আমাদের দেশের জনগণের ভোটের অধিকার দেশের জনগণকেই আদায় করতে হবে। তাই নিজেদের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে সোচ্চার হওয়ার জন্য আমি দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।”