১৫ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার
Choose Language:

সর্বশেষ
চলতি বিষয়াবলি
রাজধানীতে তীব্র যানজট নগরবাসীর ভোগান্তি
২৪ জানুয়ারি ২০১৭, মঙ্গলবার,
পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে রাজারবাগে যাতায়াতকারী পুলিশের গাড়ি চলেছে উল্টো পথে : দিনভর সাধারণ মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে
রাজধানীতে গতকাল ছিল নজিরবিহীন যানজট। পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে রাজারবাগে পুলিশের অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে নগরীর বিভিন্ন রোডে যানবাহন চলাচলের ওপর পুলিশ অলিখিত বিধিনিষেধ করায় নগরীর যানজট আরো তীব্র হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 
অভিযোগকারীরা বলেছেন, পুলিশ রাজারবাগ ও আশপাশ এলাকার সড়কগুলোতে গতকাল সকালে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তায় যানবাহন আটকা পড়ে সৃষ্টি হয় স্মরণকালের নজিরবিহীন যানজট। সকাল থেকে মতিঝিল, পল্টন, ফকিরাপুল, কাকরাইল, প্রেসক্লাব, মৎস্য ভবন, শাহবাগ, রূপসীবাংলার মোড়, রমনা, মগবাজার এলাকার প্রতিটি রাস্তায় তীব্র যানজট দেখা গেছে। সিগন্যালগুলোতে দেখা যায় গাড়িগুলো ঠায় দাঁড়িয়ে রয়েছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তায় আটকা পড়া লোকজনকে ক্ষোভ প্রকাশ করতেও দেখা গেছে। 
সাধারণ মানুষকে যানজটের কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে দীর্ঘ সময়। তবে সড়কের উল্টো দিকে গাড়ি চলা নিষিদ্ধ হলেও পুলিশকে উল্টো দিকে গাড়ি চালিয়ে যেতে নির্দেশ দিতে দেখা যায় রাজধানীর রমনা এলাকায়। এমনকি খোদ ঢাকা মহানগর পুলিশ সদর দফতরের সামনেও এ চিত্র দেখা যায়। এই এলাকা দিয়ে হেঁটে চলা গোলাম কুদ্দুস নামে একজন পথচারী বলেন, ‘দেখুন, পুলিশ কোথায় মানুষকে শৃঙ্খলা শেখাবে, সেখানে তারা শেখাচ্ছে উল্টো। পুলিশই যদি উল্টো পথে গাড়ি চালাতে উৎসাহ দেয়, তাহলে মানুষ ট্রাফিক আইন আর কতটা মানবে?’।
সরেজমিন দেখা গেছে, পুলিশ সপ্তাহের প্রথম দিনের সৃষ্ট যানজটের প্রভাবে সারাদিন ভুগেছেন রাজধানীবাসী। দীর্ঘক্ষণ সড়ক বন্ধ থাকলে যানবাহনের অভাবে মোড়ে মোড়ে সৃষ্টি হয় বিশাল জটলা। কোনো বাস আসতেই তাতে চাপতে হুড়োহুড়ি করতে  দেখা যায়। সকালে ফার্মগেট, কারওয়ানবাজার, শাহবাগ এলাকায় এই চিত্র দেখা গেছে।
জানা যায়, পুলিশ সপ্তাহে রাজারবাগের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় সকাল ১০টায়। তার আগে থেকেই তটস্থ পুলিশ সদস্যরা। তবে জনগণের যাতায়াত নির্বিঘœ করতে যতটা না চেষ্টা, তার চেয়ে বেশি উদ্যোগ ছিল ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আসার পথ সুগম করতেই। আর প্রধানমন্ত্রীর আসা উপলক্ষে আগে থেকেই সড়ক বন্ধ রাখা হয়। সকালে রাজারবাগ পুলিশ লাইনে প্রধানমন্ত্রী যাওয়ার জন্য রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে ডাইভারসন দেয়া হয়। এ কারণে রাস্তাগুলোতে যানবাহনের বাড়তি চাপে যানজটের সৃষ্টি হয়ে এক পর্যায়ে তীব্র আকার ধারণ করে।
গতকাল নয়াপল্টনে যানজটে আটকা পড়ে অতিষ্ঠ রহিমা বেগম নামের এক মহিলা বলেন, পুলিশের উচিত ছিল আগ থেকেই ছুটি ঘোষণা করা।  পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে জনগণকে কষ্ট দেয়া উচিত হযনি। যদি ছুটি ঘোষণা করা হতো তাহলে বাচ্চাদের নিয়ে বের হতাম না। স্কুল বন্ধ থাকলে এ দুর্ভোগ পোহাতে হতো না। রহিমা বেগমের মতো আরো অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। কমলাপুর জসীম উদ্দীন রোডের বাসিন্দা মমতাজ বেগম জানান, তার মেয়ে ভিকারুননিসা নুন স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। মেয়েকে নিয়ে স্কুলে যাওযার পথে নয়াপল্টন এলাকায় যানজটের কারণে আটকা পড়েন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে। বাসা থেকে সকাল ৭টায় রওনা দিয়ে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নয়াপল্টনে রাস্তায় আটকে থাকতে হয়। তিনি বলেন, রাজধানীতে যানজট নতুন কিছু নয়। কিন্তু এত যানজটের মুখে কখনো পড়তে হয়নি। 
বিজয়নগর এলাকার আনিসুল হক নামের এক ব্যবসায়ী বলেন, রাজধানীতে কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি নেই। তারপরও সকাল  থেকে দুঃসহ যানজটে স্থবির রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ প্রায় প্রতিটি সড়ক। সকাল থেকেই শান্তিনগর থেকে রাজারবাগ পর্যন্ত সড়ক প্রায় সময়ই দিনভর বন্ধ রাখে পুলিশ। মালিবাগ থেকে শান্তিনগর পর্যন্ত সড়কে যান চলাচল করেছে কেবল একমুখী।
রমনা ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট জাফর ইমাম বলেন, ‘যানজট ঢাকা শহরের নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। রাস্তায় যানজটের অন্যতম কারণ রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি। তাছাড়া পুলিশ সপ্তাহ চলছে এতে ভিআইপির জন্য কিছুক্ষণ ডাইভারসন দেয়ায় যানজট বেড়ে গেছে। তবে যানজটের মূল কারণ বিভিন্ন রাস্তায় কাটাকাটি। একবার বিদ্যুতের  লোকজন রাস্তা খুঁড়ছে, একবার ওয়াসার লোকজন খুঁড়ছে, সিটি করপোরেশন এভাবে সারা বছরই কোনো না কোনো রাস্তা খুঁড়ছে।
মতিঝিলের ব্যাংক কর্মকর্তা পিয়াস মাহবুব খান যাচ্ছিলেন ফার্মগেট। তিনি মতিঝিল থেকে ২ ঘণ্টায় হোটেল রূপসী বাংলার  মোড় পর্যন্ত আসতে পেরেছেন। পিয়াস মাহবুব বলেন, ‘আজকের যানজট ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। দেখেন মতিঝিল থেকে প্রায় দুই ঘণ্টায় এই পর্যন্ত এসেছি। আরো কতক্ষণে যে ফার্মগেট  যেতে পারব, তা বলা যাচ্ছে না।
নিউভিশন নামে একটি বাসের চালক আব্দুল্লাহ বলেন, ‘ভাই কইয়েন না, আজকের যানজটে গাড়ি লড়েই না। কেমতে যামু বুঝবার পারছি না। মতিঝিল থেকে শাহবাগ আসতেই দেড় ঘণ্টা। মিরপুর কবে যামু বুঝবার পারছি না।’
ঢাকা মহানগর পুলিশের (ট্রাফিক দক্ষিণ) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার  মেহেদী হাসানের সঙ্গে আজকের যানজট নিয়ে কথা হয়। তিনি বলেন, সপ্তাহের দ্বিতীয় কর্মদিবস হওয়ায় যানবাহনের চাপ অনেক  বেশি। তার ওপর দুই-একটি রাস্তায় ভিআইপি মুভমেন্ট ছিল, সব কিছু মিলেই কিছুটা যানজট হয়েছে।
এই যানজট বেশিক্ষণ স্থায়ী হবে না জানিয়ে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থার এই কর্মকর্তা বলেন, সকাল থেকেই যানজট মাঝে মাঝে কমে, আবার মাঝে মাঝে বাড়ছে। তবে ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যে রাস্তায় যানজট স্বাভাবিক হয়ে আসবে।
- See more at: https://www.dailyinqilab.com/article/60320/%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%9C%E0%A6%A7%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%80%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%A4%E0%A7%80%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%B0-%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%9C%E0%A6%9F-%E0%A6%A8%E0%A6%97%E0%A6%B0%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A7%80%E0%A6%B0-%E0%A6%AD%E0%A7%8B%E0%A6%97%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BF#sthash.n21LNtBt.dpufv