২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার
Choose Language:

সর্বশেষ
চলতি বিষয়াবলি
নড়াইলে গ্রামীণ ব্যাংকে দিনের বেলা ডাকাতি
২৩ জানুয়ারি ২০১৭, সোমবার,
নড়াইলে গ্রামীণ ব্যাংক মাইজপাড়া শাখায় বিকেলে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। অস্ত্রধারী পাঁচ যুবক ব্যাংকে ঢুকে শাখা ব্যবস্থাপকসহ সবাইকে জিম্মি করে দু’টি মোটরসাইকেল, সাতটি মোবাইল ফোন ও টাকা লুট করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল রোববার বিকেল ৪টায় মাইজপাড়া বাজার এলাকায় ব্যাংকের নিজস্ব ভবনে এ ঘটনা ঘটে। দিনের বেলায় ব্যাংকে অস্ত্রধারীরা প্রবেশ করে ডাকাতির ঘটনায় ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। ব্যাংকটি নড়াইল শহর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। 
ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক রিয়াজ উদ্দীন আহমেদ বলেন, আনুমানিক ১৮ থেকে ২০ বছরের পাঁচ যুবক ব্যাংকের ভেতরে প্রবেশ করে প্রথমে আমাদের সাথে কথা বলতে চায়। পরে পাঁচটি পিস্তল উঁচিয়ে আমাদের সবাইকে পণবন্দী করে। এ সময় সেকেন্ড অফিসার শাহেদ আলমসহ আট কর্মকর্তা-কর্মচারী অফিসে অবস্থান করছিলেন। আর দু’জন গ্রাহক ছিলেন। অস্ত্রধারীরা সবাইকে পণবন্দী করে টাকা লুট করতে চাইলেও ব্যাংকের ভোল্টে কোনো টাকা ছিল না। আদায়কৃত (গ্রাহকদের কাছ থেকে) তিন লাখ এবং জনতা ব্যাংক মাইজপাড়া শাখা থেকে উত্তোলনকৃত দুই লাখ টাকা গ্রাহকদের মধ্যে ঋণ হিসেবে প্রদান করে ১৭ হাজার টাকা উদ্বৃত্ত ছিল। ওই টাকা দুপুরে আবার জনতা ব্যাংকে জমা করে আসা হয়। তবে, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ব্যক্তিগত প্রায় ২৫ হাজার টাকা লুটসহ দু’জন মাঠকর্মীর কাছ থেকে চাবি ছিনিয়ে দু’টি মোটরসাইকেল (হিরো হোন্ডা ও বাজাজ প্লাটিনা) এবং আমাদের ব্যবহৃত সাতটি মোবাইল ফোন লুটে নিয়ে যায় তারা। 
রিয়াজ উদ্দীন আহমেদ আরো বলেন, অস্ত্রধারী পাঁচ যুবকের মধ্যে একজনের মুখ ঢাকা থাকলেও অন্যদের মুখ খোলা ছিল। এ ছাড়া সবার কাঁধে ব্যাগ ঝোলানো ছিল। দুইতলা ভবনের নিচতলায় ব্যাংকের অফিস। ওপরে আবাসিক ব্যবস্থা। ব্যাংকে কোনো সিসি ক্যামেরা ছিল না। স্থানীয়রা জানান, কয়েকজন যুবক দুপুর ১২টার পর থেকে অনেক সময় ব্যাংকের আশপাশে ঘোরাফেরা করছিল। ব্যাংকে ডাকাতির ঘটনায় ওই যুবকেরা জড়িত থাকতে পারে। সদর থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনায় জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে।
http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/189700