২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার
Choose Language:

সর্বশেষ
চলতি বিষয়াবলি
তুচ্ছ ঘটনায় দুই গ্র“পের মারামারিতে কিশোর খুন, আটক ৫
১৯ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার,
রাজধানীর তেজগাঁও এলাকায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গ্র“পের মারামারিতে আব্দুল আজিজ (১৭) নামে এক কিশোর নিহত হয়েছে। গতকাল দুপুরে পূর্ব তেজকুনিপাড়ার খেলাঘর মাঠে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ দুই পরে পাঁচজনকে আটক করেছে। 
জানা গেছে, নিহতের বাবার নাম বশির আলী এবং মায়ের নাম সুরভী বেগম। তাদের গ্রামের বাড়ি নরসিংদীর রায়পুরায়। তেজগাঁও রেলওয়ে স্টেশনের পেছনে একটি ওয়ার্কশপে কাজ করত আজিজ। তিনি তার বাবা-মায়ের সঙ্গে পূর্ব তেজকুনিপাড়া রেলওয়ে কলোনিতে থাকত।
নিহতের বন্ধু জসিম জানান, বেলা আড়াইটার দিকে সুমন, রনিসহ তারা কয়েকজন বন্ধু মিলে খেলাঘর মাঠে ক্রিকেট খেলছিলেন। এবং আজিজ মাঠের পাশে দাঁড়িয়ে খেলা দেখছিল। স্থানীয় সাইমন, মনির ও জুয়েলসহ কয়েকজনও তাদের খেলা দেখছিল। এ সময় এলাকার ছোট ভাই মাফিজুল মনিরকে বলে, আয়, তুই আর আমি কুস্তিগিরি করি। দেখি কে জেতে। দু’জনের কুস্তিগিরি দেখে তারা ভাবছিল মারামারি বাধছে। তাই তারা খেলা বন্ধ করে তাদের ছাড়াতে আসে। এবং দু’জনকে ছাড়িয়ে দেয় ও মনিরকে মারধর করে। এ সময় মনিরের বন্ধু সাইমন তার কোমর থেকে চাকু বের করে। আজিজ তখন সাইমনের কাছ থেকে চাকু কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এতে দু’জনের মধ্যে হাতাহাতি হয়। একপর্যায়ে সাইমনের হাত কেটে যায়। পরে সে চাকু দিয়ে আজিজের মাথায় আঘাত করলে আজিজ মাটিতে পড়ে যায়। দ্রুত তার বন্ধুরা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাপসাতালে নিয়ে যায়। বিকেল ৪টার দিকে চিকিৎসক আজিজকে মৃত ঘোষণা করেন।
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সাইমন তার হাতের চিকিৎসা করতে মনিরকে নিয়ে ঢামেক হাসপাতালে আসে। পরে ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা তাদের দু’জনকে এবং আজিজের সঙ্গে আসা তার তিন বন্ধু সুমন, জসিম ও রনিকে আটক করে তেজগাঁও থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।
তেজগাঁও থানার এসআই দিদার হোসেন বলেন, কিশোরদের মারামারিকে কেন্দ্র করে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। এতে দুই গ্র“পের পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।
এর আগে, ৬ জানুয়ারি উত্তরার সেক্টর-১৩, রোড-১৭ এর ১৫ নম্বর বাড়ির সামনে আদনান কবির নামে এক কিশোরকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। সে উত্তরায় ট্রাস্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। এ ঘটনায় ৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে আসামি করে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি হত্যা মামলা করেন নিহতের বাবা কবির হোসেন। এতে আধিপত্য বিস্তার ও গ্র“পিংয়ের জেরে এ হত্যাকাণ্ড বলে অভিযোগ করা হয়েছে। জানা গেছে, নিহত আদনান নাইন স্টার গ্র“পের এবং প্রতিপ ডিসকো বয়েজ গ্র“প উত্তরার সদস্য ছিল। পুলিশ বলছে, হত্যার ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। এদের মধ্যে একজন হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে।
http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/188638