১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার
Choose Language:

সর্বশেষ
চলতি বিষয়াবলি
কলেজছাত্রীকে কোপালো বখাটেরা
১৯ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার,
নিকলীতে মাহমুদা আক্তার (১৯) নামে এক কলেজছাত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করেছে একদল বখাটে। গত মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার পাড়া বাজিতপুর-হিলচিয়া ব্রিজের ওপর এ ঘটনা ঘটে। আহত মাহমুদা আক্তারকে রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।  ঘটনার সঙ্গে জড়িত ২ বখাটেকে আটক করে নিকলী থানা পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।
মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাড়াবাজিতপুর গ্রামের মৃত ইউনুস আলীর কলেজ পড়ুয়া কন্যা মাহমুদা আক্তারের সঙ্গে বছর খানেক আগে একই গ্রামের মহসীন মিয়ার পুত্র জসীম মিয়ার (২৫) বিয়ে হয়। এরপর জসীমের নেশাসক্ত জীবন ও বখাটেপনার বিষয়টি প্রকাশ পায়। মাহমুদা ও তার পরিবারকে নানাভাবে নির্যাতন করে বখাটে জসীম। অত্যাচার নির্যাতন সইতে না পেরে একপর্যায়ে স্থানীয় বিবাহ ও নিকাহ রেজিস্ট্রারের মাধ্যমে সর্ব সম্মতিক্রমে তালাকও হয় দুজনের। তালাকের পরও জসীম কলেজছাত্রী মাহমুদার পিছু ছাড়েনি। কলেজে যাওয়া-আসার পথে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করতো। ঘটনার দিন জসীম তার কয়েক বখাটে বন্ধু ও সহোদর ছোট ভাইকে নিয়ে রাস্তায় আগে থেকে ছোরা, দা, শাবল নিয়ে উৎপেতে থাকে। কোচিং করতে যাওয়ার পথে পাড়াবাজিতপুর ও হিলচিয়ার সংযোগ সেতুর উপরে মাহমুদার ওপর হামলে পড়ে তারা।  ধারালো অস্ত্রের উপর্যুপরি আঘাতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সে। মাহমুদার চিৎকারে পথচারীরা এগিয়ে এলে বখাটেরা পালিয়ে যায়। আহত মাহমুদাকে প্রথমে ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে রাজধানী ঢাকার সেন্ট্রাল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। বর্তমানে ওই হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।  তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। এ ঘটনায় আহত মাহমুদার বড় ভাই তাজুল ইসলাম বাদী হয়ে গতকাল ৭ জনের নাম উল্লেখ করে নিকলী থানায় একটি মামলা করেন।
http://www.mzamin.com/article.php?mzamin=49772&cat=2/%E0%A6%95%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%9C%E0%A6%9B%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%80%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%95%E0%A7%8B%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%8B-%E0%A6%AC%E0%A6%96%E0%A6%BE%E0%A6%9F%E0%A7%87%E0%A6%B0%E0%A6%BE