১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার
Choose Language:

সর্বশেষ
বিজ্ঞপ্তি
মীর কাসেম আলীর সাথে আইনজীবীদের সাক্ষাত
১৩ এপ্রিল ২০১৬, বুধবার,
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য জনাব মীর কাসেম আলীর সাথে তিনজন আইনজীবী আজ ১৩ এপ্রিল কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে সাক্ষাত করেন। আইনজীবীগণ হলেন জনাব মতিউর রহমান আকন্দ, এহসান এ. সিদ্দিকী ও মীর আহমেদ বিন কাসেম।
 
 
গত ৮ মার্চ মহামান্য আপীল বিভাগ কর্তৃক জনাব মীর কাসেম আলীর আপীল মামলাটি খারিজ করে দিয়ে যে রায় ঘোষণা করা হয় সে সম্পর্কে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপের বিষয়ে পরামর্শের জন্য আইনজীবীগণ জনাব মীর কাসেম আলীর সাথে সাক্ষাত করেন। এ বিষয়ে জনাব মীর কাসেম আলী বলেন, পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর বিস্তারিত পর্যালোচনা করে রায়ের ত্রুটিসমূহ উল্লেখ করে রিভিউ পিটিশন দায়ের করতে হবে। তিনি বলেন, তাকে যে অভিযোগে মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করা হয়েছে এবং অন্যান্য অভিযোগে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ- দেওয়া হয়েছে সে সব অভিযোগসমূহ সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ষড়যন্ত্রমূলক। কোন সাক্ষী সরাসরি আমাকে সম্পৃক্ত করে বা আমাকে দেখেছেন মর্মে কোন সাক্ষ্য দেননি। সরকার পক্ষ আমার বিরুদ্ধে যে সব ডকুমেন্ট আদালতে উপস্থাপন করেছেন সেখানে স্পষ্ট উল্লেখ আছে ঘটনার সময় আমি চট্টগ্রামেই ছিলাম না। আমি ছিলাম ঢাকায়। অথচ চট্টগ্রামের ঘটনায় জড়িয়ে আমাকে সাজা প্রদান করা হয়েছে। এতে আমি ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছি। 


জনাব মীর কাসেম আলী বলেন, আমার মামলার শুনানিকালে মহামান্য প্রধান বিচারপতি মামলার ত্রুটি-বিচ্যুতি, অসংগতি ও সরকার পক্ষের প্রদত্ত ডকুমেন্টের অসামঞ্জস্যতা উল্লেখ করে প্রকাশ্য আদালতে যে বক্তব্য ও মন্তব্য রেখেছেন তাতে বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে এ মামলাটি যে মিথ্যা তা স্পষ্টভাবে প্রতীয়মান হয়েছে। রিভিউ পিটিশনকালে এ সব বিষয় তুলে ধরার মাধ্যমে আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে হবে। মাননীয় আদালত ন্যায় বিচার নিশ্চিত করলে আমি খালাস পাবো বলে আশা করি। 
 
 
জনাব মীল কাসেম আলী বলেন, মৃত্যু নিয়ে আমি পরোয়া করি না। প্রতিটি প্রাণীকেই মরতে হবে। কেউ অমর নয়। আমাদের বিষয়ে ফায়সালা করবেন আল্লাহ রাব্বুল আলামীন। তিনি সবকিছু জানেন, শুনেন ও দেখেন। আমি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় ঘোষণা করছি আল্লাহর এ জমিনে আল্লাহর দ্বীন অবশ্যই বিজয় লাভ করবে এবং জালেম সরকারের পতন ঘটবে, ইনশাআল্লাহ। তিনি দেশবাসীকে সালাম জানান ও তার জন্য দোয়া করতে বলেন।