২৯ নভেম্বর ২০২০, রবিবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
মুজাহিদের দুই প্রশ্ন: ২৩ বছরের ছাত্র আধা সামরিক বাহিনীর কমান্ডার হয় কিভাবে?
১৪ অক্টোবর ২০১৫, বুধবার,
গতকাল মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে মিডিয়ার সাথে ব্রিফিং করছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের আইনজীবী এডভোকেট শিশির মোহাম্মদ মনির -সংগ্রাম
জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ আপিল বিভাগের রায় পর্যালোচনা করে রিভিউ দাখিল করতে বলেছেন এবং সুনির্দিষ্ট মতামত দিয়ে দুটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন তুলেছেন। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে মুজাহিদের সঙ্গে আইনজীবীরা দেখা করলে তিনি এ প্রশ্ন উত্থাপন করেন। মৃত্যুদণ্ড বহালের আপিল বিভাগের ১৯১ পৃষ্ঠার রায় পর্যালোচনা করে মুজাহিদ জানিয়েছেন, তিনি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তিনি আশা করেন রায় পুনর্বিবেচনা করে তার দণ্ড মওকুফ করে সর্বোচ্চ আদালত তাকে খালাস দেবেন। একইসঙ্গে দেশবাসীকে সালাম ও সকলের দোয়া ছেয়েছেন তিনি।
মুজাহিদের উত্থাপিত প্রথম প্রশ্ন হলো-তদন্তকারী কর্মকর্তা জেরায় স্পষ্টভাবে স্বীকার করেছেন যে, রাজাকার, আলবদর, শান্তি কমিটি কোন তালিকায় তার (মুজাহিদের) নাম নেই। তাহলে হঠাৎ করে ৪২ বছর পর কীভাবে তিনি (মুজাহিদ) আলবদরের কমান্ডার হয়ে গেলেন?”
দ্বিতীয় প্রশ্ন হলো-১৯৭১ সালে তিনি ২৩ বছর বয়সের একজন ছাত্র ছিলেন। একজন ছাত্র কীভাবে আধা-সামরিক বাহিনীর কমান্ডার হতে পারেন? কে কখন কোথায় তাকে এই পদে নিয়োগ দিলেন? এসব বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষ (প্রসিকিউশন) আদালতে কোন মৌখিক বা দালিলিক সাক্ষ্য উপস্থাপন করতে পারেনি।
আজ বুধবার রায় পুনর্বিবেচনার আবেদনে মুজাহিদের এই মতামতগুলো অন্তর্ভুক্ত করা হবে। জানিয়েছেন আইনজীবীরা।
http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=208232