১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
মাওলানা সুবহানের মামলায় ডিফেন্স সাক্ষী না দেয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত আর্গুমেন্ট ২ নবেম্বর
১৬ অক্টোবর ২০১৪, বৃহস্পতিবার,
একাত্তরে সংঘটিত কথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক জামায়াতের নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুস সুবহানের মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য আগামী ২ নবেম্বর তারিখ ধার্য করেছে ট্রাইব্যুনাল-২। গতকাল বুধবার চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এ তারিখ ধার্য করেন।
গতকাল এ মামলায় আসামীপক্ষের সাফাই সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য ছিল। কিন্তু আসামীপক্ষ তাদের সাক্ষ্য প্রদান না  করার সিদ্ধান্ত নেয়ায় ট্রাইব্যুনাল যুক্তিতর্কের তারিখ ধার্য করেন। ওই দিন প্রথমে রাষ্ট্রপক্ষ যুক্তি উপস্থাপন করবেন পরে আসামীপক্ষ তাদের যুক্তি উপস্থাপন করবেন।
ট্রাইব্যুনালে সুবহানের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন, অ্যাডভোকেট মিজানুল ইসলাম, এস এম শাহজাহান কবির, আব্দুস সাত্তার পালোয়ান ও হাসানুল বান্না সোহাগ। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন- প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম ও সুলতান মাহমুদ সীমন। গত ৩০ সেপ্টেম্বর এ মামলায় সাফাই সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ১৫ অক্টোবর দিন ধার্য করে দেন ট্রাইব্যুনাল-২।
ওই দিন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নূর হোসেনের জেরা শেষ করার মধ্য দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের মোট ৩১জন সাক্ষীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষ হয়। ২০১২ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর মাওলানা সুবহানকে মানবতাবিরোধী অপরাধে আটক দেখিয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় ট্রাইব্যুনাল। পরে ১ অক্টোবর মাওলানা আব্দুস সুবহানের পক্ষে করা জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়ে একই সঙ্গে ৪ নবেম্বর তার বিরুদ্ধে তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল।
এছাড়া সাবেক সংসদ সদস্য হিসেবে মাওলানা সুবহানকে বয়সের কথা বিবেচনা করে কারাবিধি অনুযায়ী ডিভিশন (প্রথম শ্রেণীর মর্যাদা) দেয়ার নির্দেশ রয়েছে। একই বছরের ২০ সেপ্টেম্বর  আব্দুস সুবহানকে একটি মামলায় বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল প্লাজা থেকে তাকে গ্রেফতার করে টাঙ্গাইল গোয়েন্দা পুলিশ।
http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=160961