২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
মাওলানা সুবহানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় আইও’র জবানবন্দী ডিফেন্স জেরা রোববার
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪, বৃহস্পতিবার,
জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর মাওলানা আবদুস সুবহানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় তদন্ত কর্মকর্তা নূর হোসেনের জবানবন্দী গতকাল বুধবার রেকর্ড করা হয়েছে। আগামী রোববার ডিফেন্স পক্ষের জেরার দিন ধার্য করা হয়ছে। অবশ্য গতকাল এই সাক্ষীর আংশিক জেরা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আইও নূর হোসেনকে গতকাল বুধবার জেরা করেছেন ডিফেন্স আইনজীবী এডভোকেট মিজানুল ইসলাম।  ট্রাইব্যুনাল-২ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল এই জেরা রেকর্ড করেন। গতকাল ডিফেন্সপক্ষে ট্রাইব্যুনালে আরো উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট এস.এম শাহজাহান কবির, এডভোকেট আসাদুল ইসলাম ও  এডভোকেট আবদুস সাত্তার পালোয়ান প্রমুখ।
জবানবন্দীর উল্লেখযোগ্য অংশ
আমার নাম মোঃ নূর হোসেন, পিতা মৃত মোঃ আদম আলী মাতবর, মাতা মিসেস মালেকা বেগম। আমার বর্তমান বয়স ৫০ বছর। আমি একজন পুলিশ ইন্সপেক্টর। বর্তমানে তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনানের তদন্ত সংস্থায় কর্মরত আছি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন তারিখ ২১ জুলাই ২০১০ স্মারক নং- স্বঃমঃ(আইন-২)/তদন্ত সংস্থা/১-৫/২০১০/২৪০ মোতাবেক আমাকে একজন তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। ১০/৮/২০১০ইং তারিখে আমি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থায় যোগদান করি। আই.সি.টি, তদন্ত সংস্থার স্মারক নং- ১৩১(৩), তারিখঃ ২৮/১/২০১৩ মোতাবেক আমি এই মামলার তদন্তভার প্রাপ্ত হই।
তদন্তকালে পূর্ববর্তী তদন্তকারী কর্মকর্তার সংগৃহীত ডকুমেন্টসহ সিডি পর্যালোচনা করি। মামলা তদন্তের জন্য ৯ সদস্যের টিম (তদন্ত সংস্থার সমন্বয়ক ও অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ) নিয়ে ১৯/৪/২০১৩ তারিখে পাবনা যাই। পাবনায় গিয়ে সার্কিট হাউজে জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও নেতৃবৃন্দের সাথে মিটিং করে পাবনা জেলার বিভিন্ন থানায় মাওলানা সুবহান কর্তৃক মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটন সংক্রান্তে প্রাথমিকভাবে অবহিত হই।
গত ২১/৪/২০১৩ তারিখে আমি পাবনা সদর থানাধীন কুলনিয়া গ্রামে সকাল ১০টা ২০ মিঃ শহীদ সমোজুদ্দিন প্রামাণিকসহ অন্যদের হত্যাস্থল পরিদর্শন করি। একই দিনে দোগাছি সাকিনে বেলা ১২.৫০ ঘটিকার সময় হাজির হয়ে হরিপদ সাহাসহ অন্যদের হত্যাস্থল পরিদর্শন করি। দোগাছি বাজারে বিকাল ৪টায় এবং ঐ দিন ৫.১০ ঘটিকায় শহীদ চাঁদ আলী প্রামাণিকের বাড়িতে হাজির হয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। এই সমস্ত ঘটনাস্থলের মানচিত্র অংকন করি এবং স্থির চিত্র গ্রহণ করি। এই দিন আমি সাক্ষী মোঃ শহিদুল্লাহ ওরফে শহীদ, আবদুল মতিন, মমতাজ উদ্দিন মন্টু ও খোদা বকসের বক্তব্য লিপিবদ্ধ করি।
গত ২২/৪/২০১৩ তারিখে পাবনা সদর থানার ভাড়ারা গ্রমে হাজির হয়ে মাওলানা আবদুস সুবহান ও পাকিস্তান সেনাবাহিনী কর্তৃক অপহৃত তালেব শেখ, জব্বার শেখ ও নূরুল ইসলাম শেখসহ অন্যদের অপহরণস্থল পরিদর্শন করি এবং সেখানে মোঃ আলী রানা শেখ, আক্কাস শেখ, আবদুল আজিজসহ আরো কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে উল্লেখিত ৩ জনের বক্তব্য লিপিবদ্ধ করি।

http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=158884