২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার
Choose Language:

সর্বশেষ
চলতি বিষয়াবলি
সঙ্ঘাত বন্ধের চেষ্টায় মধ্যপ্রাচ্যে বান কি মুন: গাজায় প্রতি ১০ সেকেন্ডে একটি গোলা আঘাত হানছে
২০ জুলাই ২০১৪, রবিবার,
নিষ্পাপ শিশুটি জানে না যুদ্ধ কী। জানে না কী তার অপরাধ। তার পরও ইসরাইলি বর্বর হামলায় প্রাণ দিতে হলো তাকে : নয়া দিগন্ত
ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ইসরাইলের স্থল অভিযান গতকাল আরো তীব্রতর করা হয়। ১০ দিনের টানা বিমান হামলার পর গত বৃহস্পতিবার স্থল অভিযানে নামে ইসরাইল। আল জাজিরার খবরে বলা হয়, গতকাল গাজার পূর্ব সীমান্ত বরাবর প্রতি ১০ সেকেন্ডে একটি করে ট্যাংকের গোলা নিক্ষেপ করে ইসরাইলি সেনারা। এতে অন্তত ৩৪ জন নিহত হয়েছেন। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা স্থল অভিযানে ৬৫ জনে এবং গত ১২ দিনের টানা হামলায় ৩৩৩ জনে পৌঁছেছে। তাদের মধ্যে ৭৭টি শিশু, ২৪ জন নারী ও ১৮ জন বয়স্ক ফিলিস্তিনিও রয়েছেন। এ পর্যন্ত আহত হয়েছেন ৬৭৫ শিশুসহ ২,৩৮৫ জন। গাজার পূর্ব সীমান্তজুড়ে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের ট্যানেল বা সুড়ঙ্গগুলো ধ্বংস করাই স্থল অভিযানের লক্ষ্য বলে ইসরাইলি বাহিনী জানিয়েছে। অন্য দিকে গাজা থেকে হামাসের সামরিক শাখা ইজ্জাদ্দিন আল-কাসসাম ব্রিগেডের রকেট হামলা অব্যাহত রয়েছে। রকেট হামলায় এ পর্যন্ত এক ইসরাইলি সেনাসহ তিনজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। জাতিসঙ্ঘ বলছে, ইসরাইলের স্থল অভিযান থেকে প্রাণ বাঁচাতে ৫০ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন। খবর আল জাজিরা, এএফপি ও বিবিসি।
এ দিকে জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব বান কি মুন ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে চলমান সহিংসতা নিরসনের ল্েয গতকাল ওই অঞ্চল সফরে গেছেন। তার এই সফরের উদ্দেশ্য হলো ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে চলমান ‘সহিংসতার অবসান ঘটানো ও সমাধানের পথ বের করা।’ তবে জাতিসঙ্ঘ মহাসচিবের মধ্যস্থতায় বরফ গলবে কি না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ইসরাইলের আত্মরার অধিকারকে সমর্থন করেছেন। গতকাল ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সাথে টেলিফোনে আলাপের সময় হামাসের হামলা থেকে ইসরাইলের আত্মরার অধিকারকে সমর্থন করে ওবামা বলেন, কোনো রাষ্ট্রের সীমান্তের অভ্যন্তরে রকেট নিেেপর বিষয়টি মেনে নেয়া উচিত নয়। তবে গাজায় হামলা তীব্রতর না করার পক্ষেও বলেছেন তিনি। গাজায় তিন শতাধিক বেসামরিক মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে ওবামা বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, আমাদের মিত্র ও সহযোগী রাষ্ট্রগুলো ইসরাইলের হামলা আরো তীব্রতর হওয়ার ঝুঁকি এবং আরো বেশি নিরীহ মানুষের প্রাণহানির আশঙ্কায় গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। ওইদিকে মিসরের প্রস্তাবিত অস্ত্রবিরতির শর্ত মেনে নিতে হামাসের সাথে আলোচনা করার জন্য তুরস্ক ও কাতারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।
ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, ইসরাইলের সাথে গাজার পূর্ব সীমান্তে হামাসের যে অসংখ্য টানেল বা সুড়ঙ্গ রয়েছে সেগুলো সম্পূর্ণ ধ্বংস করাই এবারের স্থল অভিযানের লক্ষ্য। তবে এই লক্ষ্য সম্পূর্ণভাবে অর্জিত হবে কি না তা নিয়ে সন্দিহান তিনি। এ দিকে ইসরাইলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, গাজার মধ্যাঞ্চল থেকে শুক্রবার টানেল দিয়ে ইসরাইলে প্রবেশ করার পর এক হামাস সদস্যকে তারা হত্যা করেছে। সীমান্তের নিকটবর্তী একটি ইহুদি জনপদে হামলার টার্গেট নিয়ে কয়েকজন সশস্ত্র হামাস সদস্য ওই সুড়ঙ্গ দিয়ে ইসরাইলে প্রবেশ করার পর একজনকে হত্যা করা হয়। অবশিষ্টরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় বলে ইসরাইলি সেনারা জানায়। এ সময় হামাস সদস্যদের পাল্টা গুলিতে দুই ইসরাইলি সেনা আহত হয়।
http://www.dailynayadiganta.com/details.php?nayadiganta=NTU3NTg=&sec=1