১০ জুলাই ২০২০, শুক্রবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
মাওলানা নিজামীর মামলায় সরকার পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন অব্যাহত
১২ মার্চ ২০১৪, বুধবার,

বাংল দেশে জামায়াতে ইসলামীর আমীর সাবেক মন্ত্রী বিশ্ব বরেণ্য ইসলামী ব্যক্তিত্ব মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর বিরদ্ধে আনীত ১৯৭১ সালের কথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় দ্বিতীয় দফা যুক্তি উপস্থাপন অব্যাহত রয়েছে। সরকার পক্ষ গতকাল মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো যুক্তি উপস্থাপন করেন। সরকার পক্ষে প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলী গতকাল এবং পূর্বদিন মিলিয়ে ১, ২, ৩, ৪, ৬, ৭, ১১, ১২, ১৩ ও ১৪ নং অভিযোগ প্রমাণের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন। মাওলানা নিজামীর বিরুদ্ধে আনীত ১৬টি অভিযোগের মধ্যে এ নিয়ে ১০টি অভিযোগের পক্ষে সরকার পক্ষ যুক্তি উপস্থাপন করলেন। প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলী ৫নং অভিযোগের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করবেন না বলে জানিয়েছেন গতকাল। বাকি ৫টি অভিযোগের ওপর আজ বুধবার, তিনি যুক্তি উপস্থাপন করবেন। এছাড়াও ল’পয়েন্টে প্রসিকিউটর সৈয়দ হায়দার আলী ও ড. তুরিন আফরোজ যুক্তি উপস্থাপন করবেন বলে জানানো হয়েছে। সরকার পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষ হলে আসামী পক্ষ যুক্তিতর্ক শুরু করবেন।
বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে অপর দুই সদস্য বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হকের সমন্বয়ে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১-এ চলছে মাওলানা নিজামীর বিরুদ্ধে আনীত ১৯৭১ সালের কথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার দ্বিতীয় দফার আর্গুমেন্ট। সরকার পক্ষে অন্যান্যের মধ্যে শুনানিকালে আরো উপস্থিত ছিলেন তুরিন আফরোজ, মীর ইকবাল হোসেন, আলতাফ উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম, সায়েদুল ইসলাম সুমন প্রমুখ। আসামী পক্ষে উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট মিজানুল ইসলাম, ব্যারিস্টার নাজিব মোমেন, এডভোকেট আসাদ উদ্দিন, হাসানুল বান্না সোহাগ, আমিনুল ইসলাম বাপিণ প্রমুখ।
গতকালের আর্গুমেন্টে প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলী বলেন, ১৯৭১ সালের ৩ আগস্ট দৈনিক সংগ্রামে প্রকাশিত খবর মতে মতিউর রহমান নিজামী সেনাবাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। তিনি সেনাবাহিনীর ত্যাগ ও সাহসের জন্য আল্লাহর কাছে মুনাজাত করেন। আল্লাহ সেনাবাহিনীর মাধ্যমে পাকিস্তানকে রক্ষা করেছেন বলেও মন্তব্য করেন নিজামী। অখ- পাকিস্তানকে রক্ষার জন্য ছাত্রসমাজ ও দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান নিজামী। এর মাধ্যমে তিনি অপরাধ সংঘটনে সেনাবাহিনীকে উস্কানি ও অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। পাকিস্তানকে তিনি আল্লাহর ঘর বলে অভিহিত করেছেন এবং সেই ঘরকে কেউ ধ্বংস করতে পারবে না বলে মন্তব্য করেন।
১৯৭১ সালের ২৩ আগস্ট শহীদ আল মাদানীর দোয়া অনুষ্ঠানে মাওলানা নিজামীর বক্তৃতার খবর দৈনিক সংগ্রাম থেকে উদ্ভূত করে মোহাম্মদ আলী বলেন, মাদানীর রক্তের বদলা দেয়ার জন্য উস্কানি দিয়েছেন নিজামী। এই মাদানী কে ছিলেন কোর্ট জিজ্ঞেস করলে তার সদুত্তোর দিতে পারেননি মোহাম্মদ আলী। তিনি বলেন, মুসলমান কখনও মৃত্যুকে ভয় করে না মন্তব্য করে নিজামী জিহাদের ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহ্বান জানান। দেশের প্রতি ইঞ্চি ভূমি রক্ষা করতে ইসলামী ছাত্র সংঘের কর্মীরা প্রস্তুত বলে মন্তব্য করে নিজামী ০৯/০৯/১৯৭১ ইং তারিখের সংগ্রামে প্রকাশিত খবরে বলেন। হিন্দুদের মূল ভূখ-েও আঘাত হানতে আমরা প্রস্তুত। মোহাম্মদ আলী বলেন, যশোরে রাজাকার সদর দফতরে বক্তৃতায় নিজামী সূরা তাওবার ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন যে, যারা পাকিস্তানের অস্তিত্বে আঘাত হেনেছে তাদেরকে খতম করতে হবে।
মাওলানা নিজামীর বিরুদ্ধে আনীত ১নং অভিযোগের পক্ষে যুক্তি দিয়ে মোহাম্মদ আলী বলেন, একজন প্রত্যক্ষদর্শী এবং আরেকজন শোনা সাক্ষী বলেছেন যে তাদেরকে আর্মির গাড়িতে করে ইছামতি নদীর তীরে নিয়ে হত্যা করে গর্তে ফেলে রেখে আসে পাক আর্মি। ঐ গাড়িতে আর্মি মেজরের পাশের সিটে নিজামী বসা ছিলেন।
২নং অভিযোগের পক্ষে যুক্তি দেখিয়ে মোহাম্মদ আলী বলেন, রূপসী, বাউশগাড়ী ও ডেমরায় সাড়ে ৪শ’ মানুষকে হত্যা করে পাক আর্মিরা। আর্মিরা এই হত্যা লুণ্ঠন, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ করেছে নিজামীর নির্দেশ ও দেখিয়ে দেয়া মতে।
http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=140705