১৯ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
মাওলানা ইউসুফের বিরুদ্ধে ১২তম সাক্ষীর জেরা ক্লোজ || হরতাল অবরোধে কি সিনিয়র আইনজীবীরাও পিকেটিং করতে চলে যান ? -ট্রাইব্যুনাল চেয়ারম্যান
২৭ নভেম্বর ২০১৩, বুধবার,
১৮ দলের ডাকা ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচির কারণে গতকাল মঙ্গলবার ট্রাইব্যুনালে সিনিয়র আইনজীবী উপস্থিত হতে না পারায় মাওলানা ইউসুফের মামলায় প্রসিকিউশনের ১২তম সাক্ষীর জেরা ক্লোজ করে দিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২। জামায়াতে ইসলামীর সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা একেএম ইউসুফের মামলায় এই ঘটনা ঘটেছে। একই সাথে ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত এ মামলা পরিচালনায় অংশ নেয়া অপর আইনজীবী গাজী এএইচএম তামিমকে উদ্দেশ্য করে ট্রাইব্যুনাল চেয়ারম্যান ওবায়দুল হাসান বলেন, হরতাল অবরোধ হলেই আপনারা ট্রাইব্যুনালে আসবেন না, এটা তো হতে পারে না। আপনাদের সিনিয়র আইনজীবীরাও কি তাহলে হরতাল অবরোধে পিকেটিং করতে চলে যান? চেয়ারম্যান আরো বলেন, রাজনীতি করতে হলে রাস্তায় গিয়ে করুন। ট্রাইব্যুনালের কাজে বিঘœ সৃষ্টি করবেন না। আপনারা হরতাল কিংবা অবরোধের অজুহাতে ট্রাইব্যুনালে আসবেন না তাই বলে তো আর আমরা (ট্রাইব্যুনাল) বসে থাকতে পারি না। কোর্টের কাজ ঠিক মতোই চলবে।
গতকাল মাওলানা ইউসুফের মামলায় প্রসিকিউশনের ১২তম সাক্ষীর জেরা ক্লোজ করে দেয়ার পর ট্রাইব্যুনাল থেকে বাইরে এসে গাজী তামিম সাংবাদিকদের আরো জানান, আমরা আজ সকালে আবেদন করে ট্রাইব্যুনালে বলেছি, দেশের বিরাজমান পরিস্থিতির কারণে সিনিয়র আইনজীবীরা আসতে পারেননি। তাই  সাক্ষীকে জেরা করার জন্য আমাদেরকে একটু সময় দেয়া প্রয়োজন। এ সময় ট্রাইব্যুনাল চেয়ারম্যান বলেন, আপনাদেরকে আর সময় দেয়া হবে না। আজকেই (মঙ্গলবার) দুপুরের পরে দুইটায় এসে জেরা করবেন। অন্যথায় জেরা ক্লোজ করে দেয়া হবে।
আইনজীবী গাজী তামিম আরো জানান, আমরা দুপুরের পরে দু’টি গ্রাউন্ডে আবেদন নিয়ে আবারো ট্রাইব্যুনালে গিয়ে সময় চেয়েছি। আবেদনে প্রথমত আমরা বলেছি, যেহেতু দেশে রাজনৈতিক কারণে বিরাজমান পরিস্থিতিতে রাস্তায় বের হওয়ার মতো কোন পরিবেশ বা নিরাপত্তাও নেই তাই আজকে আমাদের সময় দেয়া হোক। একই সাথে আমরা অপর গ্রাউন্ডে বলেছি, যেহেতু উচ্চ আদালত তথা আপীল বিভাগও হরতাল বা অবরোধের কারণে আমাদের অন্যান্য মামলাতে সময় আবেদন মঞ্জুর করে সময় দিয়েছে তাই আপনাদের কাছেও অর্থাৎ ট্রাইব্যুনালেও সময় চাইছি। কিন্তু ট্রাইব্যুনাল-২ ডিফেন্স আইনজীবীদের আবেদন গ্রহণ না করে এই মামলায় প্রসিকিউশনের ১৩তম সাক্ষীর জন্য আগামী রোববার দিন ধার্য করেছেন।
http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=133001