২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
মাওলানা ইউসুফের বিরুদ্ধে সাক্ষীর জেরা আগামীকাল || দেশে হরতাল অবরোধ যাই হোক না কেন এই ট্রাইব্যুনাল চলবেই -বিচারপতি ওবায়দুল হাসান
১৩ নভেম্বর ২০১৩, বুধবার,
জামায়াতে ইসলামীর সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা এ কে এম ইউসুফের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের চতুর্থ সাক্ষীর জেরার জন্য আগামীকাল বৃহস্পতিবার পুনরায় তারিখ নির্ধারণ করেছে ট্রাইব্যুনাল-২। গতকাল মঙ্গলবার এই জেরার দিন ধার্য থাকলেও ডিফেন্স পক্ষের সিনিয়র আইনজীবী ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত না থাকায়  আগামীকাল নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে ডিফেন্স আইনজীবীকে সতর্ক করে দিয়ে ট্রাইব্যুনাল আরো বলেছে, এভাবে আর সময় বাড়ানো হবে না। হরতালের অজুহাতে সিনিয়র আইনজীবীরা আসতে না পারলে প্রয়োজনে জেরা বন্ধ করে দেয়া হবে।
এদিকে ট্রাইব্যুনাল থেকে বের হয়ে ডিফেন্স পক্ষের আইনজীবী গাজী এ এইচ এম তামিম সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, চেয়ারম্যান আমাদের সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, আগামীতে কোন অজুহাতে সিনিয়র কোন আইনজীবী ট্রাইব্যুনালে আসতে না পারলে প্রয়োজনে সাক্ষীকে জেরা বন্ধ করে দেয়া হবে। এছাড়া চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান আরো বলেছেন, দেশে হরতাল অবরোধ হাঙ্গামা যাই হোক না কেন এই ট্রাইব্যুনাল চলবেই।
এর আগে গত রোববার ট্রাইব্যুনালে জবানবন্দী দিয়েছেন প্রসিকিউশনের চতুর্থ সাক্ষী ইউসুফ আলী সিকাদার। বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এ সাক্ষ্য দিয়েছেন তিনি। সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সাক্ষীর জেরা অসম্পন্ন রেখে মামলার কার্যক্রম গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত মুলতবি করেন আদালত। কিন্তু গতকাল হরতালের কারণে সিনিয়র আইনজীবী আসতে না পারায় আগামীকাল বৃহস্পতিবার জেরার তারিখ পুনঃনিধারণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য গত ১ আগস্ট ইফসুফের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ট্রাইব্যুনাল। গত ৬ মে তার পক্ষে করা জামিন আবেদন খারিজ করে দেয়া হয়। গত ১২ মে ট্রাইব্যুনাল গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার পর ধানমন্ডির বাসা থেকে জামায়াতের এই নেতাকে গ্রেফতার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।
http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=131935