১০ জুলাই ২০২০, শুক্রবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
হরতালের জন্য কোর্ট বসে থাকবে না -ট্রাইব্যুনাল চেয়ারম্যান : মাওলানা নিজামীর পক্ষের আর্গুমেন্টের জন্য আজ পুনরায় তারিখ নির্ধারণ
১২ নভেম্বর ২০১৩, মঙ্গলবার,
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর সাবেক মন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে আনীত ১৯৭১ সালের কথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় তার পক্ষের আর্গুমেন্ট বা চূড়ান্ত যুক্তি উপস্থাপন গতকাল সোমবারও হরতালের কারণে হয়নি। হরতালজনিত উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে মাওলানা নিজামীর পক্ষের কোন সিনিয়র আইনজীবী গতকাল ট্রাইব্যুনালে যাননি। তরুণ আইনজীবী এডভোকেট আসাদ উদ্দিন হাজির হয়ে বুধবার পর্যন্ত তিন দিনের জন্য মামলার কার্যক্রম মুলতবি রাখার আবেদন জানান। আসাদ উদ্দিন বলেন, এই মামলার এনগেজ আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক, এডভোকেট মিজানুল ইসলাম, তাজুল ইসলাম, মনজুর আহমেদ আনসারী কেউই অনিবার্য কারণে আসতে পারেননি। সরকার পক্ষে প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলী এর বিরোধিতা করেন এবং আবেদন নাকচ করে মামলার পরবর্তি কার্যক্রম গ্রহণ করার আবেদন জানান। অপর প্রসিকিউটর আবুল কালাম বলেন, মামলার সমুদয় সাক্ষ্য-প্রমাণ কোর্টের সামনে রয়েছে। কাজেই আসামীপক্ষ যদি আর্গুমেন্ট না করে সে ক্ষেত্রে ট্রাইব্যুনাল ঐসব ডকুমেন্টের ভিত্তিতে রায় দিতে পারেন। আমরাও বাসে এসেছি কষ্ট করে হরতালের মধ্যে। তারা কেন আসতে পারবে না।
ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বলেন, যেভাবে হরতাল হচ্ছে তাতে কবে হরতাল শেষ হবে তা আমরা জানিনা। কোর্ট তো তার জন্য বসে থাকবে না। আসামীপক্ষের আইনজীবীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আজ যে গ্রাউন্ডে আপনি মুলতবি চাচ্ছেন তা আজই শেষ হয়ে যাবে।
বিচারপতি এটিএম ফজলে কবিরের নেতৃত্বে অপর দুই সদস্য বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হকের সমন্বয়ে গঠিত ট্রাইব্যুনাল-১ একদিনের জন্য মুলতবি করে আজ মঙ্গলবার আসামীপক্ষের পরবর্তি আর্গুমেন্টের দিন ধার্য করেন। মাওলানা নিজামীকে ট্রাইব্যুনালের কাঠগড়ায় আনা হয়নি। তাকে রাখা হয়েছিল নিচতলায় হাজতখানায়। হরতালের কারণে গত শনিবারই তাকে গাজীপুর জেলা কারাগার থেকে এনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছিল।
http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=131870