৩১ মে ২০২০, রবিবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
রিভিউ আবেদন নিষ্পত্তি না করেই আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে সরকার পক্ষের সূচনা বক্তব্য প্রদান ॥ ১৯ ডিসেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণ
৬ ডিসেম্বর ২০১৩, শুক্রবার,
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে দেয়া ট্রাইব্যুনালের আদেশ পুনঃবিবেচনার আবেদন নিষ্পত্তির জন্য আগামী ৮ ডিসেম্বর তারিখ নির্ধারন করে বলা হয়েছে ঐদিন রিভিউ আবেদনের শুনানী করতে না পারলে ওটা আর শোনা হবেনা। লাগাতার অবরোধে দেশ অচল হলেও সচল আছে ট্রাইব্যুনাল। আসামিপক্ষের তরুন আইনজীবী সৈয়দ মোহাম্মদ রায়হান উদ্দিন ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে জানান যে, অবরোধের কারণে প্রধান ডিফেন্স কৌশুলী ব্যরিষ্টার আব্দুর রাজ্জাকসহ সিনিয়র আইনজীবিরা আসতে পরেননি । এ জন্য তিনি সময়ের আবেদন করেন। এই আবেদন গ্রহণ করে রোববার দিন ধার্য করেন কোর্ট। গাজীপুর জেলা কারাগারে আটক এটিএম আজহারুল ইসলামকেও নিয়ে আসা হয় ট্রাইবুনালে। রিভিউ আবেদন শুনানীর জন্য কোর্ট এক দিনের জন্য মুলতবি করলেও সূচনা বক্তব্য প্রদান করেছেন সরকার পক্ষ। আগামী ১৯ ডিসেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।
ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের নেতৃত্বে অপর দুই সদস্য বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হকের সমন্বয়ে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল গতকাল সোমবার এই সিদ্ধান্ত প্রদান করেন। গত ১২ নবেম্বর এটিএম আজহারের বিরুদ্ধে একাত্তরে সংঘটিত হত্যা, নির্যাতন, গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধে ছয়টি অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযোগ গঠন করে আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। একইসঙ্গে ট্রাইব্যুনাল তার বিরুদ্ধে সরকারপক্ষের সূচনা বক্তব্য ও সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ৫ ডিসেম্বর দিন ঠিক করেন। রিভিউ আবেদন নিষ্পত্তির জন্যও একই দিন ধার্য করে আদেশ দেয়া হয় গত রোববার। কিন্তু চলমান অবরোধ তিনদিন থেকে বাড়িয়ে ৬ দিন করার কারণে গতকাল বৃহস্পতিবারও আসামী পক্ষের সিনিয়র আইনজীবিরা ট্রাইব্যুনালে আসতে পারেননি। ফলে রিভিউ আবেদনের শুনানীর জন্য সময়ের আবেদন করতে হয়।
 সরকার পক্ষে প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম, এ কে এম সাইফুল ইসলাম, নুর জাহান মুক্তা,তাপস কান্তি বল,রেজিয়া সুলতানা চমন সূচনা বক্তব্য আদালতের সামনে পাঠ করেন।
গত বছর ২২ আগস্ট এটিএম আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর ওইদিনই তার মগবাজারের বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তখন থেকে তিনি কারাগারে আছেন। #