১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার
Choose Language:

সর্বশেষ
ট্রাইবুনাল
এটিএম আজহারকে বসতে না দিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখা হলো ট্রাইব্যুনালের কাঠগড়ায়
২৯ অক্টোবর ২০১৩, মঙ্গলবার,
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর অন্যতম সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামকে গতকাল সোমবার ট্রাইব্যুনালের কাঠগড়ায় বসতে না দিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। আইনজীবীর দৃষ্টি আকর্ষণের জবাবে ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবির বলেন, উনাকেই জিজ্ঞেস করুন, কেন উনাকে বসতে না দিয়ে দাড় করিয়ে রাখা হয়েছে। আইনজীবী আসাদ উদ্দিন কাঠগড়ায় গিয়ে জিজ্ঞেস করলে আজহার বলেন, আমি তো জানিনা কি আমার অপরাধ। আইনজীবী একথা ট্রাইব্যুনালকে জানানোর পর আগামী ১২ নবেম্বর চার্জ গঠনের আদেশের দিন ধার্য করে বলেন, ঐদিন জানানো হবে যে তাকে কেন দাঁড় করিয়ে রাখা হলো।
বিচারপতি এটিএম ফজলে কবিরের নেতৃত্বে অপর দুই সদস্য বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হকের সমন্বয়ে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ গতকাল সোমবার টানা ৬০ ঘণ্টা হরতালের দ্বিতীয় সকাল পৌনে ১১টায় এজলাসে বসেন। কার্য তালিকায় ১ নম্বরে মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর মামলা থাকলেও তাকে না এনে তালিকার ২ নম্বরে থাকা আজহারুল ইসলামকে নিয়ে আসা হয় এজলাস কক্ষের কাঠগড়ায়। তার আগেই কাঠগড়ায় রক্ষিত অভিযুক্তের বসার চেয়ারটি বের করে দেয়া হয়। ফলে দেশের অন্যতম এই শীর্ষ রাজনীতিবিদকে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকতে হয় আসামীর কাঠগড়ায়। তাকে আগে আনা হলেও মামলা কল করা হয় আগে মাওলানা নিজামীরটি। এই মামলায় মূলতবি আবেদনের ওপর যুক্তি-পাল্টা যুক্তি ও আদেশ দিতে সময় চলে যায় ২০ থেকে ২৫ মিনিট। তার পর ডাকা হয় তার মামলাটি। এই মামলায়ও অনিবার্য কারণে (হরতাল) সময়ের আবেদন করেন সিনিয়র আইনজীবীদের অনুপস্থিতিতে তরুণ আইনজীবি রায়হান উদ্দিন। ট্রাইব্যুনালে গতকাল আজহারুল ইসলামের পক্ষে সিনিয়র আইনজীবী ও প্রধান ডিফেন্স কৌঁসুলী ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাকের ডিসচার্জ পিটিশনের উপর যুক্তি উপস্থাপনের কথা ছিল। কিন্তু হরতালের কারণে তিনি আসেননি। তার পক্ষে সময়ের আবেদন করা হয়। ট্রাইব্যুনাল আবেদন বিবেচনা না করে আগামী ১২ নবেম্বর চার্জ গঠনের আদেশের দিন ধার্য করেন। এই দুটি মামলার নিষ্পত্তি হওয়া পর্যন্তু এটিএম আজহারুল ইসলামকে বসতে না দিয়ে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। মামলার কার্যক্রম চলাকালেই এ বিষয়ে আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এডভোকেট আসাদ উদ্দিন। ট্রাইব্যুনাল চেয়ারম্যান বলেন, এটা উনাকেই জিজ্ঞেস করেন। এক ফাঁকে কাঠগড়ায় গিয়ে জিজ্ঞেস করে এসে আসাদ উদ্দিন বলেন, অভিযুক্ত বিষয়টি জানেন না। সব সময়ই তো আসামীকে চেয়ারে বসতে দেয়া হয়, আজ কেন চেয়ার নেই তা কারো বোধগম্য নয়। পরে চেয়ারম্যান বলেন, এটা ১২ নবেম্বর বলা হবে।
http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=130794