২৮ মে ২০২০, বৃহস্পতিবার
Choose Language:

সর্বশেষ
বিজ্ঞপ্তি
২৬ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩, বৃহস্পতিবার,
তারিখঃ ২৫-০৯-২০১৩ : বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল জনাব আব্দুল কাদের মোল্লাহসহ জামায়াতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ ও ১৮ দলীয় জোটের গ্রেফতারকৃত নেতা-কর্মী এবং আলেমগণের মুক্তি, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা সংবিধানে পুনর্বহাল ও সরকারের পদত্যাগের দাবীতে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে আগামীকাল ২৬ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান আজ ২৫ সেপ্টেম্বর নিম্নোক্ত বিবৃতি প্রদান করেছেনঃ-
“সরকার জামায়াতকে নেতৃত্ব শূন্য করার জন্য জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল জনাব আব্দুল কাদের মোল্লাসহ সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যা করার গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারা তথাকথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের মিথ্যা মামলায় বিচারের নামে প্রহসনের আয়োজন করেছে। সরকার মূলত: দেশ থেকে ইসলাম নির্মূলের চক্রান্ত করছে। এ ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে সরকার জামায়াত-শিবির এবং ওলামায়ে কেরামসহ দেশের জনগণের ওপর গণনির্যাতন, গণগ্রেফতার ও গণহত্যা চালিয়ে দেশে এক বিভৎস পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। রাষ্ট্র পরিচালনার ব্যর্থতা ঢাকার জন্য সরকার একের পর এক হত্যাকান্ড ঘটিয়ে চলেছে। শতকরা ৯৫ ভাগ মানুষের দাবী তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনর্বহালের দাবী অগ্রাহ্য করে একটি ভোটারবিহীন প্রহসনের নির্বাচন করার জন্য যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। সরকারের নীল নকশার নির্বাচন অনুষ্ঠিত করা ও জামায়াত-শিবিরসহ ১৮ দলীয় জোটকে ধ্বংস করার জন্য সরকার প্রশাসনকে অত্যন্ত নগ্নভাবে দলীয়করণ করেছে এবং বিচার বিভাগের স্বাধীনতা, নিরপেক্ষতা ধূলিস্যাৎ করে নগ্ন দলীয় করণের মাধ্যমে ন্যায় বিচারের পথ রুদ্ধ করে দিয়েছে। দেশের জনগণ সরকারের হাতে জিম্মী হয়ে পড়েছে।
সরকার ১৮ দলীয় জোটকে বাইরে রেখে ভোটারবিহীন একদলীয় প্রহসনের নির্বাচন করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। আর নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষতা হারিয়ে সরকারের তলপীবাহক সহযোগী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। এ নির্বাচন কমিশনের অধীনে কখনো সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করা সম্ভব হবে না। জনগণ এ নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ চায়।
বর্তমান সরকারের ব্যর্থতা আজ ষোল কলায় পূর্ণ হয়েছে। দেশের অর্থনীতির মেরুদন্ড সম্ভাবনাময় গার্মেন্টস সেক্টরকে ধ্বংস করার জন্য সরকার গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। সরকার পরিকল্পিতভাবে গার্মেন্টস শিল্প ধ্বংস করে বাংলাদেশকে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের বাজার বানানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। দেশের গার্মেন্টস শ্রমিকরা ন্যায্য বেতনের দাবীতে কয়েকদিন যাবত তীব্র আন্দোলন করে যাচ্ছে। পুলিশ তাদের গুলি করছে ও লাঠি পেটা করছে। ইতোমধ্যেই প্রায় ৪ শত গার্মেন্টস বন্ধ হয়ে গিয়েছে। গার্মেন্টস শ্রমিকদের ন্যায্য দাবী মেনে নিয়ে তাদের বেতন যৌক্তিকভাবে বৃদ্ধি করার জন্য আমি সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।
সরকার জুলুম নির্যাতন নিপীড়ন চালিয়ে ক্ষমতা দীর্ঘায়িত করার যে ষড়যন্ত্র করছে জনগণ তা কখনো বাস্তবায়বায়ন হতে দিবে না। দেশের মানুষ সরকারের সকল চক্রান্ত প্রতিহত করবে।
জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল জনাব আব্দুল কাদের মোল্লাসহ সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ ও ১৮ দলীয় জোটের আটক নেতা-কর্মী ও আলেমদের মুক্তি, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা সংবিধানে পুনর্বহাল করে প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত ট্রাইব্যুনাল ভেঙ্গে দিয়ে সরকারের পদত্যাগের দাবীতে জামায়াতের পক্ষ থেকে আমি আগামীকাল ২৬ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করছি।
ঘোষিত এ কর্মসূচি সফল করার জন্য আমি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সকল শাখা ও দেশাবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”
 
মোঃ ইব্রাহিম    
কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগ
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী